kalerkantho


বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের যাবজ্জীবন

শেরপুর প্রতিনিধি   

১৩ জুলাই, ২০১৮ ০১:৪০



বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের যাবজ্জীবন

শেরপুরে বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। শেরপুরের সিনিয়র দায়রা জজ এম এ নূর বৃহস্পতিবার বিকেলে আসামির উপস্থিতিতে এ দণ্ডদেশের রায় প্রদান করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত শ্যামল চন্দ্র দাস (৫৫) নকলা উপজেলার বাছুর আগলা গ্রামের মৃত জয়কান্ত দাসের ছেলে। রায়ে একই সঙ্গে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

আদালতের ভারপ্রাপ্ত পিপি অ্যাডভোকেট অরূণ কুমার সিংহ রায় জানান, অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বাবাকে হত্যার অপরাধে ছেলে শ্যামল চন্দ্র দাসকে (৫৫) যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন। মামলার নথির সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিয়ে তিনি জানান, ২০১২ সালের ৯ আগস্ট রাত তিনটার দিকে শ্যামল চন্দ্র দাস ও তার বাবা জয়কান্ত দাস শেরপুর শহরের শিতলপুর এলাকায় মনজিত কুমার সাহার (মনো) ভাড়া করা ধানের খোলায় নৈশ প্রহরীর দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় বেতনের ৪ হাজার টাকা নিয়ে ঝগড়ার একপর্যায়ে ছেলে শ্যামল তার বাবা জয়কান্তের গলায় দা দিয়ে ফেস দিয়ে হত্যা করেন

ঘটনার পর সকালে ওই ধানের খোলা থেকে জয়কান্ত দাসের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর নিহত জয়কান্ত দাসের অপর ছেলে সুভাষ চন্দ্র দাস বাদী হয়ে তার ভাই শ্যামল চন্দ্র দাসকে আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ আসামি শ্যামল চন্দ্র দাসকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারের পর থেকে শ্যামল শেরপুর জেলা কারাগারে আটক ছিলেন। 

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শেরপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুল্লাহ্ আল-মামুন আসামি শ্যামল চন্দ্র দাসকে অভিযুক্ত করে আদালতে ২০১৫ সালের ১৪ মার্চ চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন। আদালতের বিচারক ৮ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার যাবজ্জীবন সাজার রায় ঘোষণা করেন। 



মন্তব্য