kalerkantho


শুরু হলো জাতীয় আলোকচিত্র উৎসব ২০১৭

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

২৯ জুলাই, ২০১৭ ২১:১৭



শুরু হলো জাতীয় আলোকচিত্র উৎসব ২০১৭

ঢাকা ইউনিভার্সিটি ফটোগ্রাফিক সোসাইটি (ডিইউপিএস) ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির যৌথ আয়োজনে আজ শনিবার শুরু হয়েছে চতুর্থ  জাতীয় আলোকচিত্র উৎসব ২০১৭।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের উপস্থিতিতে সকাল ১০টায় টিএসসি থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালির মাধ্যমে শুরু হয় এ উৎসব। এ ছাড়া বিকেল ৪টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্ঠিত হয় উদ্বোধনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, "স্কুল জীবন থেকেই ছবি তোলার ইচ্ছে ছিল এবং তুলতাম। তখন ব্যয় বেশি থাকলেও এখন অনেক কম। বর্তমানে ছবি তোলা একটি আন্দোলনে রূপ নিয়েছে। স্বাধীনতার পর থেকে ব্যাপকতা পাওয়া ফটোগ্রাফি বর্তমানে বিশ্ব দরবারে অবদান রাখছে। যেখানে শুধু ছেলেরা নয় মেয়েরাও এগিয়েছে অনেক দূর। তারা তাদের যোগ্যতা বলে এতদূর এসেছে। " তিনি বলেন, "বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা যখন এগিয়ে যেতে চাই তখন পেছন থেকে একটা সাম্প্রদায়িক শক্তি আমাদের টেনে ধরে।

এমনটা আগে ছিল না। সৃজনশীল হয়ে এদের প্রতিহত করতে হবে। যাতে একটি সুন্দর দেশ ও সুন্দর জীবন পায় ভবিষ্যত প্রজন্ম। "

সভাপতির বক্তব্যে শিল্পকলা একাডেমির পরিচালক লেয়াকত আলী লাকী বলেন, "ফটোগ্রাফ নিয়ে ঢাকা ইউনিভার্সিটি ফটোগ্রাফি সোসাইটি কাজ করে যাচ্ছে দীর্ঘদিন। এতে তাদের অবদান অসামান্য। প্রযুক্তিকে শুধু ফেসবুকময় করা যাবে না। প্রযুক্তিকে মানবীয় করতে হবে, যার জন্য কাজ করতে হবে সবাইকে। " তিনি বলেন, "খুব দ্রুত সময়ে শিল্পকলায় আবৃত্তি ও ফটোগ্রাফির দুটি নতুন বিভাগ চালু করা হবে। যার মাধ্যমে ফটোগ্রাফির সামনের পথ সুগম হবে। "

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিউট (আইবিএ) এর পরিচালক অধ্যাপক ড. এ কে এম সাইফুল মজিদ ও নৃবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান হাসান এ শাফি। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ঢাকা ইউনিভার্সিটি ফটোগ্রাফিক সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মিমু দাশ এ ছাড়া বক্তব্য দেন সংগঠনটির সভাপতি প্যারিস তালুকদার।

উৎসবে বাংলাদেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া আলোকচিত্রীসহ পেশাদার আলোকচিত্রীদের তোলা ১১১টি একক আলোকচিত্র প্রদর্শিত হবে। যেগুলো বাছাই করা হয়েছে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার আলোকচিত্র থেকে। এছাড়াও এতে স্থান পেয়েছে ৩টি ফটোস্টোরি। ৩১জুলাই সোমবার উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠানে আলোকচিত্রী নাসির আলী মামুন কে ঢাকা ইউনিভার্সিটি ফটোগ্রাফিক সোসাইটির পক্ষ থেকে আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হবে। প্রদর্শনীতে রয়েছে তাঁর সংক্ষিপ্ত জীবনীসহ ৮ টি আলোকচিত্র।

প্রদর্শনীতে আগামীকাল রবিবার বিকেল ৩টা থেকে ৬টা পর্যন্ত তরুণ আলোকচিত্রীদের জন্য আয়োজন করা হবে ফটোগ্রাফি ক্লাব প্রেজেন্টেশন, মিট দ্য জাজ সেশান এবং আলোকচিত্রী রাহুল তালুকদারের আর্টিস্ট টক। শেষ দিন ৩১ জুলাই বিকেল ৩টায় আর্টিস্ট টক এ থাকবেন আলোকচিত্রী সাইফুল হক অমি, প্রিন্সিপ্যাল, কাউন্টার ফটো বাংলাদেশ। সন্ধ্যা ৭টায় সমাপনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শেষ হবে তিন দিনব্যাপী এ আলোকচিত্র উৎসব। পুরো আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার হিসেবে রয়েছে দৈনিক কালের কণ্ঠ।

আগামীকাল রবিবার এবং পরশু সোমবার পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার ৬ নম্বর গ্যালারিতে প্রদর্শনীটি চলবে প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। প্রদর্শনীটি সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।  


মন্তব্য