kalerkantho


বঙ্গবন্ধুর ওপর শিল্পকলা একাডেমিতে জমজমাট সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ এপ্রিল, ২০১৮ ২১:৫৪



বঙ্গবন্ধুর ওপর শিল্পকলা একাডেমিতে জমজমাট সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে দেড় ঘন্টার গান আর ইতিহাসভিত্তিক নৃত্যের ঝংকার শ্রোতাদের মুগ্ধ করলো। বঙ্গবুন্ধ, মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং মুক্তিযুদ্ধের বিজয় শিল্পীরা নাচের মুদ্রায় ও গানের ভাষ্যে তুলে ধরেন।
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজন করে এই সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। গতকাল রাতে একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বেশ কয়েকটি গান পরিবেশন করা হয়। গানের সঙ্গে ছিল বেশ কয়েকটি নৃত্য। গান আর নৃত্যের তালের সাথে উঠে আসে মুক্তিযুদ্ধের ঘটনাপ্রাবহ ও বঙ্গবন্ধুর জীবন সংগ্রামের চিত্র।
অনুষ্ঠানের শুরুতে একাডেমির পক্ষ থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান অনুষ্ঠান পরিচালক। প্রথমেই লিয়াকত আলী লাকীর লেখা গান ‘রূপসী বাংলা, জননী বাংলা, আজ কেঁদে কেঁদে কয়, তোমার মুজিব কোথায় ’ গানের সঙ্গে শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীরা নৃত্য পরিবেশন করে। নাচ পরিচালনা করেন ওয়ার্দি ওহাব। পরে এ দলটি ‘ শোন একটি মুজিবরে কণ্ঠ থেকে ’ গানের সাথে আরও একটি নাচে অংশ নেয়।
শিল্পী এম এ মোমেন একক গান ‘ মুজিব বাইয়া যাও রে, শিল্পী সুচিত্র রানী সূত্রধর ‘ সেই রেল লাইনের ধারে,কবি নির্মলেন্দু গুণের লেখা কবিতা ‘ মুজিব মানে আর কিছু না’ গানটির সাথে সমবেত নাচ পরিবেশন করে শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীরা। গানটির সুর করেছেন ও গেয়েছেন লিয়াকত আলী লাকী
আরও একক গান গেয়ে শোনান রাফি তালুকদার ‘ একাত্তরে মা জননী, ইয়াসমিন আলী ‘তুমি বিনে রে মুজিব’। দ্বৈত গান পরিবেশন করেন সোহানা রহমান ও আনাবিদা আলী। ঢাকা সাংস্কৃতিক দল সমেবত গান ‘সাড়ে সাত কোটি মানুষের আর একটি নাম, মুজিবর, মুজিবর, মুজিবর’ পরিবেশন করে। সবশেষে দীপা খন্দকারের পরিচালনায় ‘ বঙ্গবন্ধু জাতিরজনক, এ জাতির মহাবীর’ গানের সাথে ইতিহাসমূলক নৃত্য পরিবেশিত হয়।


মন্তব্য