kalerkantho


নজরুলের জীবন এক বিদ্রোহ, বিস্ময় : আলোচনায় বক্তারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৪ মে, ২০১৮ ২১:৩০



নজরুলের জীবন এক বিদ্রোহ, বিস্ময় : আলোচনায় বক্তারা

নজরুলের পুরো জীবনই এক বিদ্রোহ, বিস্ময়। কবি অনমনীয় দৃঢ়তায় যেমন সাম্রাজ্যবাদ ও অসাম্যের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন, ঠিক তেমনি সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধেও নিজের জীবন ও সাহিত্য দিয়ে বিদ্রোহ করেছেন। ।
আজ বৃহস্পতিবার বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তারা এ কথা বলেন।
তারা আরো বলেন, ব্যক্তিগত জীবনে কবি নজরুলের মতো অসাম্প্রদায়িক মানুষ খুঁজে পাওয়া বিরল। ধরাবাঁধা জীবন ও সাহিত্যধারার বিপরীতে দাঁড়িয়ে তিনি যেমন উদ্দাম আবেগে সামনে এগিয়ে গেছেন, একই সঙ্গে আমাদেরও দিয়েছেন পথ চলার দিশা।
নজরুল জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষ্যে নজরুল বিষয়ক একক বক্তৃতা ও সংগীতানুষ্ঠানেরও আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল কাইউম। অনুষ্ঠানে ‘নজরুল : চিরবিদ্রোহী ’ শীর্ষক একক বক্তৃতা প্রদান করেন অধ্যাপক মোরশেদ শফিউল হাসান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলা একাডেমির সচিব ও ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।
অধ্যাপক মোরশেদ শফিউল হাসান বলেন, মানুষই ছিল নজরুলের মর্মকথা। তঁর জীবন বিদ্রোহের আভায় ¯œাত, বিচিত্র ও বর্ণাঢ্য। কবিতায় তিনি নতুন স্বরের উদ্গাতা, গদ্যে মননের সাধক, সংগীতে ধ্রুপদী ও লোকধারার স্বার্থক সেতুবন্ধকারী, বেতার ও চলচ্চিত্রের জগতে স্বচ্ছন্দবিহারী।
তিনি বলেন, ব্যক্তিত্বের অনমনীয় দৃঢ়তায় কবি যেমন সাম্রাজ্যবাদ ও অসাম্যের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন ঠিক তেমনি সমকালীন সমাজের হিন্দু ও মুসলিম সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে নিজের জীবন ও সাহিত্য দিয়ে বিদ্রোহ করে গেছেন। ব্যক্তিগত জীবনে তাঁর মতো অসাম্প্রদায়িক মানুষ খুঁজে পাওয়া বিরল।
সভাপতির ভাষণে অধ্যাপক মোহাম্মদ আবদুল কাইউম বলেন, নজরুলের জীবন এক বিদ্রোহ, বিস্ময়। ধরাবাঁধা জীবন ও সাহিত্যধারার বিপরীতে তিনি প্রাণের উদ্দাম আবেগে সামনে ছুটে গেছেন, একই সঙ্গে আমাদেরও দিয়েছেন পথ চলার দিশা।
মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, নজরুল ছিলেন হিন্দু-মুসলমানের মিলনের প্রতীক। ধর্মের নামে বাড়াবাড়ির বিরুদ্ধে তিনি ছিলেন সদা-সোচ্চার।
সবশেষে ছিল সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে নজরুলগীতি পরিবেশন করেন শিল্পী লীনা তাপসী খান। যন্ত্রাণুষঙ্গে ছিলেন পিনু সেন দাস (তবলা), গাজী আবদুল হাকিম (বাঁশি) এবং ডালিম কুমার বড়–য়া। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলা একাডেমির কর্মকর্তা মাহবুবা রহমান।


মন্তব্য