kalerkantho


শিক্ষামন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা নিখোঁজ

আটক দুইজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে : শিক্ষামন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৬:৩৬



আটক দুইজনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে : শিক্ষামন্ত্রী

ফাইল ছবি

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে আটক শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দুইজনের বিরুদ্ধে চাকরিবিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। তিনি বলেন, “আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ধরেছে, নিশ্চয়ই কোনো অভিযোগ আছে। সে অভিযোগ কোর্টে প্রমাণ হবে এবং শাস্তি হবে। সেই বিধান অনুসারে আমাদের যে সিস্টেম আছে, সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবার বিকেল ৪টার দিকে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা বসিলা এলাকা থেকে শিক্ষামন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মোতালেব হোসেনকে তুলে নেয় বলে অভিযোগ করেন তার পরিবারের সদস্য। পরে এ বিষয়ে রাজধানীর হাজারীবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়। এ ঘটনার দুই দিন আগে বনানী এলাকা থেকে নিখোঁজ হন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের গ্রহণ ও বিতরণ শাখার উচ্চমান সহকারী নাসির উদ্দিন। পরে পুলিশ রবিবার জানায় ওই দুইজন তাদের হেফাজতে আছে।

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, দুজনের নিখোঁজের খবরে সবাই উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লেও এখন আর ‘চিন্তা করার দরকার নেই’। তিনি আরো বলেন, এটা এখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপার। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী (ধরে) নিলে কিছু না কিছু কারণ আছে। দুর্নীতি হোক, অন্য যে কোনো ধরনের অপরাধ হতে পারে, অপরাধ আছে।”

আরো পড়ুন-এবার নিখোঁজ শিক্ষামন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী

নাহিদ বলেন, “যদি তারা কোনো ঘুষ নিয়ে থাকে… যে কোনো ধরনের অপরাধ করে থাকেন, ব্যবস্থা সরকার নেবে।… আইনি ব্যবস্থায় যা আছে তাই হবে। আর সেই সঙ্গে এই অপরাধে অপরাধী হলে অবশ্যই আমাদের এখান থেকে চাকরিবিধি অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নেব।”

পুলিশের হাতে আটক মোতালেব নিজের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা হলেও এখন আর তাকে কোনো সহযোগিতা দেবেন না বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

তিনি বলেন, “যা হওয়ার তাই হবে, আমরা এটা বরদাস্ত করব না। আমরা কোনোভাবেই বলব না যে আমার এখানে, মন্ত্রণালয়ে কাজ করে তাই তাকে আমরা সহযোগিতা দেব, মোটেই দেব না।

নাহিদ বলেন, “আমরা কখনও কোনো অন্যায়কারী, কোনো ঘুষ খাওয়া, দুর্নীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত, বেআইনি কাজ করা কোনো লোককে প্রশ্রয় দেব না, তার বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নেব।”

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “এখানে (শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে) কারো জন্যই দুর্নীতি, অনিয়ম, ঘুষ বা আইনবিরোধী কোনো কাজ করার কোনো সুযোগ, কোনো অধিকার নেই, তারপরেও হয়ত হয়।”


মন্তব্য