kalerkantho


সাভারে স্কুল শিক্ষার্থীসহ তিন মরদেহ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

২০ মে, ২০১৮ ১৭:০৪



সাভারে স্কুল শিক্ষার্থীসহ তিন মরদেহ উদ্ধার

ঢাকার সাভারে পৃথক স্থান থেকে এক স্কুল শিক্ষার্থীসহ তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ রবিবার দুপুরে পৌর এলাকার মজিদপুর মহল্লা থেকে ওই স্কুল শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করে সাভার মডেল থানা পুলিশ। এ ছাড়াও সাভার মডেল থানা পুলিশ গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় সাভারের জিনজিরা থেকে একজন শ্রমিকের এবং একই দিন সন্ধ্যায় সাভার পৌর এলাকার বক্তারপুর মহল্লা থেকে একজন পরিবহন শ্রমিকের মরদেহ উদ্ধার করে।
 
পুলিশ জানায়, আজ রবিবার দুপুরে সাভার পৌর এলাকার মজিদপুর মহল্লার নিজ বাড়ি থেকে ইয়াসিন আসিক (১৫)  নামের একজন স্কুল শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিজ ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় ইয়াসিনের মরদেহ দেখতে পায় পরিবারের সদস্যরা। পরে তারা সাভার মডেল থানা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। নিহত ইয়াসিন মজিদপুর এলাকার আজাব হোসেনের ছেলে। সে সাভারের শাহীবাগ এলাকার ল্যাবরেটরি স্কুলের অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

এদিকে গতকাল শনিবার বিকেলে সাভারের কলমার জিনজিরা এলাকায় প্রসেস ইন্ডাস্ট্রিয়াল লিমিটেড কারখানায় মেশিনে কাজ করার সময় বুলবুল আহমেদ (৩২) নামে এক শ্রমিক দুর্ঘটনার শিকার হয়ে মারা যান। পরে খবর পেয়ে পুলিশ সন্ধ্যায় তার মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত বুলবুল আহমেদ রংপুর জেলার গংগাছড়া থানার কচুয়া গ্রামের বদিউজ্জামানের ছেলে। 

কর্মরত অবস্থায় নিহত শ্রমিকের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে কারখানা কর্তৃপক্ষ। 

অন্যদিকে একইদিন সন্ধ্যায় সাভারের বক্তারপুর এলাকায় ক্যাভার্ড ভ্যানের ওপর থেকে মালামাল নামানোর সময় ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া বিদ্যুৎ লাইনে জড়িয়ে মিঠু সরদার (৩০) নামে ক্যাভার্ড ভ্যানের একজন হেলপার নিহত হন। নিহত মিঠু সরদার বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট থানার পাগলা শ্যামনগর গ্রামের মৃত কেরামত আলী সরদারের ছেলে।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসিনুল কাদির জানান, স্কুল শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে জানা যাবে ঘটনাটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা। তবে আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে কিছু জানা যায়নি। 

তিনি আরো জানান, উদ্ধার হওয়া তিনটি মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য