kalerkantho


মগজ ধোলাই

বীরবলকে বাঁচাও!

২১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



বীরবলকে বাঁচাও!

একবার মহাবিপদে পড়ল বীরবল। অত্যাচারী হীরক রাজার দেশে বেড়াতে গিয়েই যত ঝামেলা। এবার আর কোনো বুদ্ধিতেই কাজ হচ্ছে না। হীরক রাজাকে নিয়ে ঠাট্টা করার কারণে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে। ধরেবেঁধে নিয়ে আসা হয়েছে উন্মুক্ত মঞ্চে। জনতার সামনেই কার্যকর হবে দণ্ড। বীরবলের মগজে চলছে তুফান। হীরক রাজা আবার সব কিছুতে একটু নাটক পছন্দ করেন। তাই তিনি বীরবলের সঙ্গে একটু মসকরা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সবার সামনে ঘোষণা দিলেন, ‘উপস্থিত জনতা, আমি যে উদার, তোমরা জানো তা?’ সবাই সমস্বরে, ‘জি, মহারাজ! আপনার দিল দরাজ!’ রাজা বললেন, ‘তবে শোনো। বীরবলের মাফ নাই কোনো। তবে তাকে দিতে পারি একখান সুযোগ আমি। খুব দামি। তার সঙ্গে হোক চুক্তি। ভাগ্যে থাকলে পাইবে মুক্তি।’ হীরক রাজার আদেশমতো বীরবলের সামনে একটা বাকসো হাজির করা হলো। তাতে দুটি কাগজ ভাঁজ করে রাখা। বীরবলকে জানানো হলো, এর একটায় লেখা আছে মৃত্যু, অন্যটায় মুক্তি। হীরক রাজা মিটিমিটি হাসছেন। তা দেখে বীরবলের বুঝতে দেরি হলো না যে দুটি কাগজেই আসলে তার মৃত্যুর কথা লেখা আছে। জনতাও খুশি। বীরবলের সামনে দুটি কাগজ। বীরবল এখন কী করবে?

ধাঁধার উত্তর পাবে আগামী সংখ্যায়


মন্তব্য