kalerkantho


এক্সিকিউটিভ, ক্রিয়েটিভ প্রগ্রাম, চ্যানেল আই

চাকরিটাকে শুধু চাকরি হিসেবেই দেখছি না

কেউ গানের জনপ্রিয় তারকা, কেউ বা অভিনয়ে মাতান দর্শক। কারো ক্ষেত্র আবার মডেলিং। এসব পরিচয়ের বাইরে তাঁরা চাকরিজীবী। কয়েকজন তারকা কর্মজীবীর গল্প শোনাচ্ছেন মাহতাব হোসেন ও আতিফ আতাউর

কোনাল, জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী   

১৪ জুন, ২০১৮ ১০:৪১



চাকরিটাকে শুধু চাকরি হিসেবেই দেখছি না

সংগীতশিল্পী সোমনুর মনির কোনাল ব্যবসায় প্রশাসনে পড়াশোনা করেছেন কুয়েতের আমেরিকান ইউনিভার্সিটি অব লন্ডন থেকে। ঢাকার ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস থেকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগেও গ্র্যাজুয়েশন করেছেন তিনি। গান করার পাশাপাশি কোনাল চাকরি করেন বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল আইয়ে। প্রতিষ্ঠানটিতে ক্রিয়েটিভ প্রগ্রামে এক্সিকিউটিভ হিসেবে কর্মরত কোনাল। চাকরিতে আছেন সাত বছর ধরে। ২০০৯ সালে কোনাল চ্যানেল আই সেরা কণ্ঠে চ্যাম্পিয়ন হন। রীতিমতো তারকাখ্যাতি পেয়ে যান। পেশাদার কণ্ঠশিল্পী হয়ে ওঠার আগেই চাকরির প্রস্তাব পান চ্যানেল আই থেকে। কোনাল বলেন, ‘একদিন সাগর ভাই বললেন, তুমি চাইলে আমাদের প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে পারো। সেটি ২০১০ সালের ঘটনা। আমি কাজের ধরন সম্পর্কে জানতে চাইলাম। সাগর ভাই সবিস্তারে বললেন। সাগর ভাইয়ের প্রস্তাবে দ্বিতীয়বার ভাবলাম না। যুক্ত হলাম চ্যানেল আইয়ে।’

কোনালের মূল কাজ ক্রিয়েটিভ আইডিয়া দেওয়া। পাশাপাশি বিভিন্ন অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন। কোনাল বলেন, ‘কাজটাকে শুধু চাকরি হিসেবেই দেখছি না। এটি একটি ক্রিয়েটিভ কাজ। পর্দায় যেসব নিত্যনতুন অনুষ্ঠান আসে, সেগুলো আমাদের মস্তিষ্কপ্রসূত। ধরা যাক, রুনা লায়লার ক্যারিয়ারের ৫০ বছর পূর্ণ হচ্ছে। এ নিয়ে একটি অনুষ্ঠান করতে হবে। প্রগ্রামটা সাদামাটা করলে হবে না। তিনি কিংবদন্তি শিল্পী। তাঁর ৫০ বছরের ক্যারিয়ার আমরা ৫০ মিনিটে উপস্থাপন করব। ঠিক করতে হবে, অনুষ্ঠানের পুরো ফরম্যাট কী হবে। অনুষ্ঠান প্রচার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের কাজ চলতেই থাকে।’

চাকরি গানের ক্যারিয়ারকে বাধাগ্রস্ত করে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে কোনাল বলেন, ‘মোটেও না। আমাদের কাজের সময়টা খুবই ফ্লেক্সিবল। সব সময় যে অফিসে আসতে হবে এমনটাও নয়। আমার শো কিংবা অনুষ্ঠান থাকলে জাস্ট আগেই জানিয়ে রাখি। তাত্ক্ষণিকভাবে কোনো অনুষ্ঠান হলেও সমস্যা নেই। আমাদের কাজ পরিকল্পনা করা, স্ক্রিপ্ট তৈরি করা। সবাই মিলে কাজ ভাগ করে নিলেই সহজ হয়ে যায়। তবে মাঝেমধ্যে একটানা কাজ করতে হয়। এমনও হয়, একটা পুরো প্রগ্রামের স্ক্রিপ্ট আমাকে লিখতে হচ্ছে। পরিকল্পনা করতে হচ্ছে।’

আপনার পেশাকে ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চান যাঁরা, তাঁদের প্রতি পরামর্শ কী? ‘এটি একটি সৃজনশীল কাজ। তাই আপনাকে অবশ্যই ক্রিয়েটিভ মাইন্ডেড হতে হবে। বিজ্ঞাপনী সংস্থাগুলোতে কাজের অভিজ্ঞতা এ পেশায় আসতে অনেকটাই সহায়তা করবে।’

পরিকল্পনা সৌন্দর্যচর্চার জগৎ ঘিরেই


মন্তব্য