kalerkantho


কার্য তদারককারী, রাজউক

ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও আমার নাটক দেখেন

কেউ গানের জনপ্রিয় তারকা, কেউ বা অভিনয়ে মাতান দর্শক। কারো ক্ষেত্র আবার মডেলিং। এসব পরিচয়ের বাইরে তাঁরা চাকরিজীবী। কয়েকজন তারকা কর্মজীবীর গল্প শোনাচ্ছেন মাহতাব হোসেন ও আতিফ আতাউর

তারিক স্বপন, জনপ্রিয় অভিনেতা   

১৪ জুন, ২০১৮ ১০:৪৩



ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও আমার নাটক দেখেন

অভিনেতা জাহিদ হাসান একবার সিরাজগঞ্জ যান। সেখানে স্থানীয় প্রসূন থিয়েটার মঞ্চস্থ করছিল ‘হামেদ আলীর স্বর্গ দর্শন’। এই নাটকেরই একটি চরিত্রে ছিলেন তারিক স্বপন। নাটক দেখে মুগ্ধ জাহিদ হাসান। মফস্বল এলাকায় এমন অভিনয় আর নির্দেশনা দেখে তিনি অভিভূত। নাটক শেষে জাহিদ হাসান খোঁজ নিলেন—কে এই তারিক স্বপন। জানতে পারেন, নাটকটির নির্দেশনাও তারিক দিয়েছেন। তিনি তারিক স্বপনকে ডাকলেন। বললেন, ‘তুমি ঢাকায় এলে তোমাকে সহযোগিতা করতে পারি।’

১৯৯৮ সালে সিরাজগঞ্জ থেকে ঢাকায় চলে আসেন তারিক স্বপন। এসেই শহীদুল আলম সাচ্চুর থিয়েটারে যোগ দেন। কিন্তু শুধু থিয়েটার করলেই তো চলবে না। বেঁচে থাকতে হলে দরকার চাকরি। জাহিদ হাসানের শরণাপন্ন হলেন। জাহিদ হাসান বিভিন্ন জায়গায় চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। এরই মধ্যে জানা গেল, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) লোক নিচ্ছে। চেষ্টা করলেন, সেখানে যাতে তারিকের একটি ছোটখাটো হলেও চাকরি হয়। শেষ পর্যন্ত হয়েও গেল।

তখন থেকেই রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষে কাজ করছেন এই অভিনেতা। এই প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রজেক্ট তদারক করাই মূলত তাঁর কাজ। একটি প্রজেক্টে একাধিক তদারককারী থাকেন। বিষয়টি আরেকটু পরিষ্কার করে বলতে গেলে—একটি ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হবে। সবার মধ্যে কাজ বণ্টন করা হয়। একজন প্রকৌশলীর অধীনে হয়তো ১০ জন সহকারী প্রকৌশলী ও কর্মী থাকেন। তাঁদের পাশাপাশি প্রজেক্টে রাজউক থেকে দুইজন বা একজন তদারককারীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। তদারককারী পুরো প্রকল্পের কাজ পর্যবেক্ষণ করেন ও প্রতিবেদন জমা দেন।

অভিনয় ঠিক রেখে চাকরি সামলে যাচ্ছেন তারিক স্বপন। তিনি জানালেন, ‘একটু কষ্ট হয়, তবে সামলে নিই। আমি অভিনয় করতেই ঢাকায় এসেছি। কিন্তু অভিনয়জীবনের প্রথম দিকে আয়ের মূল উৎস ছিল চাকরি।’

তারিক স্বপন বলেন, ‘অফিসে আমার মূল দায়িত্ব প্রকল্পের কাজ পর্যবেক্ষণ করা। প্রজেক্টের খুঁটিনাটি বিষয় যাচাই করা। ফাইল রেডি করা। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও আমার নাটক দেখেন, আমার অভিনয় পছন্দ করেন। তাই অনেক সহযোগিতা পাই তাদের কাছ থেকে।’

তারিক স্বপন জানালেন, রাজউকে চাকরি করতে হলে অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি চাকরির মতোই প্রস্তুতি নিতে হবে। বাংলা, ইংরেজি, গণিত, সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিতে হয়। ক্ষেত্রবিশেষে নেওয়া হয় লিখিত পরীক্ষাও। সব শেষে ভাইভায় টিকলেই মিলতে পারে চাকরি।


মন্তব্য