kalerkantho


৩৬ প্রতিষ্ঠানের পণ্যের মান ঠিক নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



পবিত্র রমজানকে সামনে রেখে খাদ্য নিরাপদ ও মানসম্পন্ন করার লক্ষ্যে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ২৪ ধরনের খাদ্যপণ্য সংগ্রহ করে পরীক্ষা করেছে বিএসটিআই। পরীক্ষায় ৩৬টি প্রতিষ্ঠানের পণ্যের মান সঠিক নয় বলে চিহ্নিত হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর মতিঝিলে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে ‘রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্যের মান নিয়ন্ত্রণে বিএসটিআই গৃহীত বিশেষ কার্যক্রম’ সম্পর্কে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু এসব তথ্য জানান। এ সময় শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. দাবিরুল ইসলাম, বিএসটিআইয়ের মহাপরিচালক সরদার আবুল কালামসহ শিল্প মন্ত্রণালয় এবং বিএসটিআইর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শিল্পমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, ‘মুড়ি, কলা, খেজুর, আম, সফ্ট ড্রিংক পাউডার, কার্বোনেটেড বেভারেজ, ফ্রুট সিরাপ, ফ্রুট জুস, ভোজ্য তেল, সরিষার তেল, ঘি, পাস্তুরিত দুধ, নুডলস, ইনস্ট্যান্ট নুডলস, লাচ্ছা সেমাই, সেমাই, পানির ওপর বিএসটিআইয়ের অভিযানে বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে।’

অতিসম্প্রতি বিএসটিআই ভেজালবিরোধী ১৯টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় ৭৪টি প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়েছে জানিয়ে আমির হোসেন আমু বলেন, এসব অভিযানে ৩০ লাখ ৯০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ২৬টি প্রতিষ্ঠান সিলগালা করে জড়িত থাকার অভিযোগে ৫৭ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। অভিযানে ২৬ হাজার ৫০০টি নিম্নমানের ও অবৈধ পানির জার ধ্বংস করা হয়। রমজানে নিরাপদ পানি সরবরাহে এসব অভিযান অব্যাহত থাকবে। রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও সাতক্ষীরায় আম, লিচুসহ বিভিন্ন মৌসুমি ফলে ফরমালিনের প্রয়োগ প্রতিরোধে বিশেষ অভিযান চালানো হচ্ছে বলেও জানান শিল্পমন্ত্রী।

মন্ত্রী হিসাব কষে বলেন, ‘গত বছরের জুলাই থেকে গত ১৩ মে পর্যন্ত ভেজালবিরোধী ৩৮২টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৫২২টি মামলা দায়ের করে সব নিষ্পত্তি করা হয়। সার্ভিল্যান্স টিম ৪০৫টি মামলা দায়ের করে। জরিমানা আদায় করা হয় এক কোটি ৫২ লাখ টাকা। এ সময় ৫৮ জনকে কারাদণ্ড দিয়ে ২৮টি কারখানা সিলগালা করা হয়।


মন্তব্য