kalerkantho


ভ্যাটের চাপ না বাড়িয়ে আয়করে জোর দেওয়ার তাগিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ভ্যাটের চাপ না বাড়িয়ে আয়করে জোর দেওয়ার তাগিদ

মূল্য সংযোজন করের (ভ্যাট) ওপর চাপ না বাড়িয়ে প্রত্যক্ষ বা আয়করের ওপর জোর দেওয়ার তাগিদ দিয়েছেন নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা। ব্যাংকিং খাতের অনিয়ম ও ব্যবস্থাপনার অদক্ষতার সমালোচনা করে তাঁরা ‘ব্যাংক কমিশন’ গঠনেরও দাবি জানান।

গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক মানববন্ধনে অর্থপাচার বন্ধ এবং আর্থিক খাতের সুশাসন নিশ্চিত করার আহ্বান জানান নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা। প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটের ওপর মতামত দিতে ২০টিরও বেশি নাগরিক সংগঠন মানববন্ধনে অংশ নেয়। বেসরকারি সংস্থা ইক্যুইটিবিডির প্রতিনিধি মোস্তফা কামাল আকন্দের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন কৃষক ফেডারেশনের প্রতিনিধি বদরুল আলম, কোস্ট ট্রাস্টের প্রতিনিধি সৈয়দ আমিনুল হক এবং ইক্যুইটিবিডির নির্বাহী পরিচালক রেজাউল করিম চৌধুরীসহ আরো অনেকে।

মানববন্ধনে বেশ কয়েকটি সুপারিশ তুলে ধরা হয়। তাতে বলা হয়, রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে ভ্যাট ও ব্যক্তিকর আদায়ের ওপর চাপ কমিয়ে করপোরেট কর আদায়ের ওপর গুরুত্ব দেওয়া। মধ্যবিত্তদের ওপর করের বোঝা না চাপিয়ে উচ্চবিত্তদের কাছ থেকে কর আদায় করা। ব্যক্তিশ্রেণির করমুক্ত আয়সীমা আড়াই লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে সাড়ে তিন লাখ টাকা করা। মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে যেসব বাংলাদেশি নাগরিক নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছে, তাদের সব অর্থনৈতিক তথ্য পরীক্ষা করে শ্বেতপত্র প্রকাশ করা। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে বিশেষ করে গণমাধ্যম, নির্বাচন কমিশন, স্থানীয় সরকার, দুর্নীতি দমন কমিশন, স্বাধীন ও শক্তিশালীভাবে কাজ করার সুযোগ দিয়ে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার সুযোগ করে দেওয়া।

রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, ব্যাংক কমিশন গঠনের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী সুস্পষ্ট ঘোষণা থাকার পরও ব্যাংক মালিকদের স্বার্থ রক্ষার জন্য এবং অনিয়ম ও দুর্নীতি যাতে না ধরা পড়ে, তার জন্য এবার তিনি ব্যাংক কমিশন গঠন করেননি। উল্টো ঘোষিত বাজেটে পুঁজিবাজারে নিবন্ধিত ব্যাংকের করপোরেট কর ২.৫% কমানো হয়েছে, এতে করে সরকার বড় অঙ্কের রাজন্ব আয় থেকে বঞ্চিত হবে, পাশাপাশি ব্যাংক মালিকরা আরো বেশি সম্পদশালী হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

 


মন্তব্য