kalerkantho


ঈদের আমেজ ব্যাংকপাড়ায়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ঈদুল ফিতরের ছুটি শেষে খুলতে শুরু করেছে ব্যাংক, বীমা ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠান। তবে এখনো ছুটির রেশ কাটেনি। ঈদের ছুটির পর গতকাল সোমবার ব্যাংক খুললেও প্রথম দিনে কমকর্তা ও কর্মচারীদের উপস্থিতি ছিল কম। যাঁরা এসেছেন তাঁরা কাজের চাপ কম থাকায় গল্পগুজব আর ঈদের কুশল বিনিময় করে সময় পার করেছেন। রাজধানীর ব্যাংকপাড়াখ্যাত মতিঝিল, দিলকুশা ঘুরে এমন চিত্রই পাওয়া গেছে।

ঈদের পর প্রথম কার্যদিবসে অন্যান্য ব্যাংকের মতো বাংলাদেশ ব্যাংকেরও ছিল একই চিত্র। যাঁরা এসেছেন তাঁদের বেশির ভাগই নিজেদের মধ্যে কুশল বিনিময় আর আলাপ-আলোচনায় ব্যস্ত ছিলেন। তবে ব্যাংকের অন্যান্য কার্যক্রমের মতো লেনদেন কম থাকলেও নগদ টাকা উত্তোলন ও সঞ্চয়পত্রের মুনাফা তুলতে গ্রাহকের ভিড় লক্ষ করা গেছে।

মতিঝিল সোনালী ব্যাংকের লোকাল অফিসের মহাব্যবস্থাপক নিজাম উদ্দীন আহম্মেদ চৌধুরী বলেন, ঈদের পর প্রথম কার্যদিবসে এবারও প্রথম দিন গ্রাহকদের ভিড় কম। এবার ২৯ রোজা হওয়ায় ঈদে ছুটি কম পাওয়া গেছে। অনেকে গ্রাম থেকে আসেনি। তার পরও প্রায় ৯০ শতাংশ কর্মকর্তা-কর্মচারীর উপস্থিতি রয়েছে। যারা ঈদের ছুটিতে গ্রামের বাড়িতে আছে দু-এক দিনের মধ্যে এসে পড়বে। তিনি জানান, ঈদের পর যেসব গ্রাহক আসছে তারা নগদ টাকা তুলছে। আবার অনেকে সঞ্চয়পত্রের মুনাফা তুলতে আসছে।

তিনি বলেন, অন্যান্য দিনের তুলনায় ১০ ভাগের এক ভাগ লেনদেন হয়েছে। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে কার্যক্রম শুরু না হওয়ায় বড় ধরনের কোনো লেনদেন হচ্ছে না। ছোট ছোট লেনদেন হচ্ছে। এ সপ্তাহে ক্রমান্বয়ে লেনদেন বাড়বে। আগামী সপ্তাহ থেকে স্বাভাবিক ধারায় ফিরবে লেনদেন।

এদিকে প্রাইম ব্যাংক দিলকুশা শাখার দায়িত্বরত কর্মকর্তারা জানান, ঈদের ছুটির আমেজ এখনো পুরোপুরি কাটেনি। ব্যাংকে প্রায় ৯৫ শতাংশ কর্মী উপস্থিত রয়েছে। গ্রাহক কম। লেনদেন কম হচ্ছে। বিল কাউন্টারে গ্রাহকদের উপস্থিতি বেশি। সোনালী ব্যাংকে টাকা তুলতে আসা এক গ্রাহক জানান, ভিড় কম। মাত্র পাঁচ মিনিটে টাকা তুলতে পেরেছেন।

 



মন্তব্য