kalerkantho


শ্রমিকদের চিকিৎসা ও শিক্ষা বৃত্তি দেবে কল্যাণ তহবিল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ জুন, ২০১৮ ০০:০০



পোশাক খাতের অসুস্থ শ্রমিকের চিকিৎসাসেবা ও তাদের সন্তানদের শিক্ষা খাতে বৃত্তি দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে শ্রম কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। তৈরি পোশাক খাতের কেন্দ্রীয় শ্রমিক কল্যাণ তহবিল, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন (বিডাব্লিউডাব্লিউএফ) থেকে এ অনুদান দেবে।

পোশাক খাতের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএকে দেওয়া এক চিঠির মাধ্যমে এ তথ্য জানা গেছে। এতে সংগঠনটিকে চিকিৎসা সহায়তার জন্য বিজিএমইএ সদস্য কারখানা থেকে আবেদন আহ্বান করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘শ্রম মন্ত্রণালয় চিঠি ও নমুনা আবেদনপত্র  পাঠিয়েছে। ওই পত্রের অনুসারে এরই মধ্যে আমাদের সদস্য কারখানায় চিকিৎসাসেবা ও শ্রমিকদের সন্তানদের শিক্ষা বৃত্তির আবেদন জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।’

শ্রম আইন অনুসারে, ২০১৫ সালে ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে একটি কেন্দ্রীয় শ্রমিক কল্যাণ তহবিল গঠন করা হয়। এতে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক কারখানার মালিকরা তাদের পণ্য জাহাজীকরণ মূল্যর (এফওবি) ০.০৩ শতাংশ হারে জমা দেবে। এ ছাড়া সরকার ও পোশাক খাতের ক্রেতারাও চাইলে স্বেচ্ছায় এ তহবিলে অনুদান দিতে পারে।

শ্রম মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের জুলাই থেকে যাত্রা হওয়া এই কল্যাণ তহবিলের। এতে দুটি ব্যাংক হিসাব খোলা হয়। একটি সুবিধাভোগী (বেনিফিশিয়ারি অ্যাকাউন্ট) এবং অন্যটি দুর্ঘটনাজনিত (কন্টিনজেন্সি অ্যাকাউন্ট) নামে পরিচিত। গত দুই বছরে হিসাব দুটিতে সমানভাবে ৯৬ কোটি টাকার মতো জমা হয়।

বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ডা. এ এম এম আমিনুল আউয়াল কালের কণ্ঠকে বলেন, মৃত শ্রমিকদের বীমা দাবি পরিশোধের মাধ্যমে এরই মধ্যে কেন্দ্রীয় কল্যাণ তহবিলের মালিকদের খাতের প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। এ তহবিল থেকে সরকার ব্যয় করেছে সাত থেকে আট লাখ টাকা ব্যায়। এ টাকা দুর্ঘটনায় নিহত শ্রমিকদের পরিবারকে সহায়তা করা হয়।



মন্তব্য