kalerkantho


এই মুহূর্তে বিশ্ববাজারে সবচেয়ে জনপ্রিয় মধ্যম বাজেটের স্মার্টফোনগুলো

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৩:৩৫



এই মুহূর্তে বিশ্ববাজারে সবচেয়ে জনপ্রিয় মধ্যম বাজেটের স্মার্টফোনগুলো

গত সপ্তাহের বিশ্ববাজরে সবচেয়ে জনপ্রিয় ১০টি ফোনের ৬টি ছিল মধ্যম বাজেটের। সবচেয়ে বেশি বিক্রি হওয়া ১০টি স্মার্টফোনের এক নম্বরে ছিল চীনা কম্পানি শিয়াওমির নতুন ঘোষিত প্রথম স্টক অ্যান্ড্রয়েড ফোন এমআই এ১।

বাজারে আসা মাত্রই এর বিক্রি বাড়ছে হুহু করে। মধ্যম বাজেটের এই স্মার্টফোনটি গত সপ্তাহে বিশ্ব বাজারে বিক্রির দিক থেকে প্রথম স্থানে ছিল।

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট ৮ আছে দ্বিতীয় স্থানে। দক্ষিণ কোরিয়ার স্মার্টফোন কম্পানি স্যামসাংয়ের উচ্চমূল্যের এই ফোনটি সবচেয়ে বেশি সংখ্যক বিক্রি হওয়া ফোনের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে। মাত্র দুই সপ্তাহ পরই ফোনটি এর শীর্ষ স্থান হারিয়েছে। স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৮ এর মতো সাফল্য দেখাতে পারছে না ফোনটি।

উচ্চমূল্যের স্মার্টফোন অ্যাপলের আইফোন ৬ এস আরো দুই ধাপ এগিয়ে মধ্যম বাজেটের নোকিয়া ৬-কে পেছনে ফেলে তিন নম্বরে উঠে এসেছে।

মধ্যম বাজেটের স্যামসাং গ্যালাক্সি জে ৭ এক ধাপ নিচে নেমে পাঁচে অবস্থান করছে। আর অপর উচ্চ বাজেটের স্মার্টফোন এলজি ভি ৩০ দুই ধাপ এগিয়ে ৬ষ্ঠ স্থানে উঠে এসেছে।

মধ্যম বাজেটের মটোরোলা জি৫ প্লাস একটু নিচে নেমে সপ্তম স্থানে অবস্থান করছে। উচ্চমূল্যের স্যামসাং গ্যালাক্সি এস ৮ রয়েছে অষ্টম স্থানে।

ভিভোর কোনো ফোনকে সচরাচর শীর্ষ দশে দেখা যায় না। তবে গত সপ্তাহে ভিভোর মধ্যম বাজেটের স্লিম স্মার্টফোন ভি ৭ প্লাস ছিল নবম স্থানে। আর দশম স্থানে আছে শিয়াওমির মধ্যম বাজেটের রেডমি নোট ৪।

আসুন জেনে নেওয়া যাক মধ্যম বাজেটের ৬টি স্মার্টফোনে কী আছে।

১. শিয়াওমি এমআই এ১ (৫এক্স)
ফোনটির দাম রাখা হচ্ছে ২৪০ ইউরো বা ২৩,৫১৮ টাকা। ফোনটির ডিসপ্লে ৫.৫ ইঞ্চি, ১০৮০x১৯২০ পিক্সেল রেজ্যুলেশন। অ্যান্ড্রয়েড ৭.১.২ নুগেট অপারেটিং সিস্টেমে চালিত। এতে অ্যান্ড্রয়েডের লেটেস্টে ভার্সন ৮.০ (ওরিও) পাওয়া যাবে কিছুদিন পর। ফোনটির প্রসেসর কোয়ালকম এমএসএম৮৯৫৩ স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫, অক্টা-কোর ২.০ গিগাহাটজ কর্টেক্স-এ৫৩, অ্যাডের্নো ৫০৬। র‌্যাম আছে ৪জিবি, ৬৪জিবি স্টোরেজ সহ যা ১২৮জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১২এমপি আর সেকেন্ডারি ক্যামেরাটি ৫ এমপি। ব্যাটারি ৩০৮০ এমএএইচ। চারটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি।

২. স্যামসাং গ্যালাক্সি জে ৭ প্রো
ফোনটির দাম রাখা হচ্ছে ৩০০ ইউরো (২৯,৩৯৭ টাকা)। এর ডিসপ্লে ৫.৫ ইঞ্চি, ১০৮০x১৯২০ পিক্সেল রেজ্যুলেশন। প্রসেসর এক্সিনোস ৭৮৭০ অক্টা, অক্টা-কোর ১.৬ গিগাহাটজ কর্টেক্স-এ৩। র‌্যাম ৩জিবি। স্টোরেজ ৩২/৬৪ জিবি, বাড়ানো যাবে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত। অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রেয়েড ৭.১ নুগেট। প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১৩এমপি, এফ/১.৭ অ্যাপারচার। সেকেন্ডারি ক্যামেরাটিও ১৩এমপির, এফ/১.৯ অ্যাপারচার। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর আছে। ব্যাটারি ৩৬০০ এমএএইচ। একবার চার্জে ২৪ ঘন্টা কথা বলা যাবে আর গান শোনা যাবে ৯১ ঘন্টা। চারটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে।

৩. মটোরোলা মটো জি৫ এস প্লাস
এই ফোনটিরও দাম ৩০০ ইউরো (২৯,৩৯৭ টাকা)। এর ডিসপ্লে ৫.৫ ইঞ্চি, রেজ্যুলেশন ১০৮০x১৯২০। প্রসেসর কোয়ালকম এমএসএম৮৮৯৫৩ স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫, অক্টা-কোর ২.০ গিগাহাটজ কর্টেক্স-এ৫৩। র‌্যাম ৩জিবি সাথে ৩২জিবি স্টোরেজ অথবা ৪জিবি সাথে ৬৪জিবি স্টোরেজ, বাড়ানো যাবে ২৫৬জিবি পর্যন্ত। অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রেয়েড ৭.১ নুগেট। প্রাইমারি ক্যামেরাটি ডুয়াল ১৩এমপি, এফ/২.০ অ্যাপারচার, অটোফোকাস, ডুয়াল-এলইডি (ডুয়াল টোন) ফ্ল্যাশ। সেকেন্ডারি ক্যামেরাটি ৮এমপি, এফ/২.০ অ্যাপারচার, এলইডি ফ্ল্যাশ। ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর আছে। ব্যাটারি ৩০০০ এমএএইচ।

৪. ভিভো ভি ৭ প্লাস
এই ফোনটিরও দাম দাম ৩০০ ইউরো (২৯,৩৯৭ টাকা)। এর ডিসপ্লে ৫.৯৯ ইঞ্চি, যার রেজ্যুলেশন ৭২০x১৪৪০ পিক্সেল। প্রসেসরটি কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৪৫০, অক্টা-কোর ১.৮ গিগাহাটজ কর্টেক্স-এ৫৩, অ্যাড্রেনো ৫০৬। র‌্যাম ৪জিবি, ৬৪ জিবি স্টোরেজ, ২৫৬জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রেয়েড ৭.১ নুগেট। প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১৬ এমপি, এফ/২.০ অ্যাপারচার, ফেজ ডিটেকশন অটোফোকাস, এলইডি ফ্ল্যাশ। সেকেন্ডারি ক্যামরাটি ২৪ মেগাপিক্সেল, এফ/২.০ অ্যাপারচার। ফিঙ্গারপ্রিন্ট আছে। ব্যাটারি ৩২২৫ এমএএইচ।

৫. শিয়াওমি রেডমি নোট ৪
ফোনটির দাম ১৬০ ইউরো (১৫,৬৭৮ টাকা। ৫.৫ ইঞ্চির ডিসপ্লে, ১০৮০x১৯২০ পিক্সেল রেজ্যুলেশন। কোয়ালকম এমএসএম৮৯৫৩ স্ন্যাপড্রাগন ৬২৫, অক্টাকোর ২.০ গিগাহাটজ কর্টেক্স-এ৫৩, অ্যাডের্নো ৫০৬ প্রসেসর। র‌্যাম ২/৩জিবি সাথে ৩২জিবি স্টোরেজ বা ৪জিবি র‌্যাম সাথে ৬৪ জিবি স্টোরেজ। যা ২৫৬জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রেয়েড ৬.০ মার্শম্যালো যা ৭.০ নুগেটে আপডেট করা যাবে। প্রাইমারি ক্যামেরাটি ১৩এমপি, এফ/২.০ অ্যাপারচার। সেকেন্ডারি ক্যামেরাটি ৫এমপি, এফ/২.০ অ্যাপারচার। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর আছে। ব্যাটারি ৪১০০ এমএএইচ। ব্যাটারির ক্ষমতা বেশি হওয়ার কারণে ফোনটি জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

৬. নোকিয়া ৬
এর দাম রাখা হচ্ছে ২৩০ ইউরো (২২,৫৩৮ টাকা। এর ৫.৫ ইঞ্চির ডিসপ্লে-কে সুরক্ষিত রাখতে রয়েছে গরিলা গ্লাস। রেজ্যুলেশন ১০৮০x১৯২০ পিক্সেল। কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসরের সঙ্গে ৪ জিবি র‍্যাম ও ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। মাইক্রো এসডি কার্ডের সাহায্যে মেমোরি এক্সপ্যান্ডেবল ১২৮ জিবি পর্যন্ত। রয়েছে ডুয়াল অ্যামপ্লিফায়ার যা ডলবি অ্যাটমোস সাউন্ড টেকনোলজি সাপোর্টেড। নোকিয়া ৬-এর রিয়ার ক্যামেরা ১৬ মেগাপিক্সেলের, ফ্রন্ট ৮ এমপি-র। ৩০০০ এমএএইচ ব্যাটারি সমৃদ্ধ এই ফোন ফোর-জি এলটিই সাপোর্টেড।   অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রেয়েড ৭.১.১ নুগেট।

সূত্র: জিএসএম অ্যারেনা


মন্তব্য