kalerkantho


জোক্‌স: কার মুখ দেখে উঠেছিলুম আজগে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:১১



জোক্‌স: কার মুখ দেখে উঠেছিলুম আজগে...

                                                 (১)

প্রেমিকা: তুমি কি আমাকে ভালোবাস?

প্রেমিক: এক শ বার!

প্রেমিকা: কিন্তু আমাকে তো পরোয়াই কর না তুমি!

প্রেমিক: যে সত্যিকারের প্রেমে পরে সে কারও পরোয়া করে? বল?

                                                (২)

লেকের পাশে এক লোক নিয়মিত বড়শি পেতে মাছ ধরেন। যে কয় ঘণ্টা তিনি মাছ ধরে কাটান, পাশে বসে ঠিক ততক্ষণ এক লোক গভীর মনোযোগে তার মাছ ধরা দেখেন।

একদিন মাছ শিকারি ওই মনোযোগী দর্শককে বললেন: ভাই. মাছ ধরার প্রতি তো আপানার সাংঘাতিক নেশা দেখি!

দর্শক: জ্বী!

মাছ শিকারি: সাংঘাতিক মানে কি, আসলে আমার চেয়ে বেশি আপনার আগ্রহ।

দর্শক: জ্বী!

মাছ শিকারি: তো এক কাজ করলে তো পারেন- আপনি নিজেই মাছ ধরুন না!

দর্শক: আমার অতো ধৈর্য নেই, ভাই!

                                                (৩)
শিক্ষক: মজনু, ক্লাসে এত দেরিতে এসেছ কেন?
 
মজনু: আমার কী দোষ, স্যার! বাবা-মা ঝগড়া করছিলো...
 
শিক্ষক: তারা ঝগড়া করছিল করতে দিতে, তুমি থামাতে গেলে কেন? স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া এমনিতেই থেমে যায়...

মজনু: সেইটা আমিও জানি স্যার!

শিক্ষক: তাহলে?

মজনু: আমার এক পাটি জুতা বাবার হাতে, আরেকটা মার হাতে ছিল, স্যার...

                                                (৪)

বাংলাদেশি সুপারহিট নায়িকা প্রতিবেশী দেশে গেছেন শুটিংয়ে। দেশে ফেরার আগে কেনাকাটা করতে খুব নামি এক ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে গেলেন। অসাধারণ সুন্দরী আর স্মার্ট বাংলাদেশি নায়িকাকে দেখে ম্যানেজার পাগলপ্রায়। আবোল তাবোল আচরণ শুরু করলো।

নায়িকা: ওই হীরের দুল জোড়ার দাম?

ম্যানেজার: শুধু দশটি কিস দিলেই হবে, ম্যা’ম...

নায়িকা কিছুটা অপ্রস্তুত হলেও মুচকি হেসে পরিস্থিতি সামাল দিলেন।
 
নায়িকা: আর ওই স্বর্ণের সুতোয় কাজ করা শাড়িটা?

ম্যানেজার: ওটার জন্য ৫টি...

নায়িকা: দুটোই প্যাকেট করে দিন।

ম্যানেজার হন্তদন্ত হয়ে দুল আর শাড়ি প্যাকেট করে নায়িকার হাতে ধরিয়ে গলা বাড়িয়ে দাঁড়ালো।

এবার নায়িকা তার সঙ্গে থাকা স্থানীয় কাজের বুয়াকে বললেন: বিল চুকিয়ে দাও।

খবরদার, ১৫টার বেশি দিও না কিন্তু!

ম্যানেজার: মাইরি, কার মুখ দেখে উঠেছিলুম আজগে...
 


মন্তব্য