kalerkantho


জোকস: পারলে ক্ষমা করিস, দোস্ত!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ নভেম্বর, ২০১৭ ১৮:২৭



জোকস: পারলে ক্ষমা করিস, দোস্ত!

                                                (১) 
অনেকদিন পর খোশমেজাজে গল্প চলছে মন্টুর মা আর বাপের। একপর্যায়ে দেখা গেল একটানা কথা বলছে মন্টুর মা।

মন্টুর বাপ নিজ হাতে পানি এগিয়ে দিল স্ত্রীর দিকে।  

খুশি গলায় মন্টুর মা: শুধু আমার জন্যই পান বানালে ওগো! নিজের জন্যও একটা বানাও!

মন্টুর বাপ: আমি মুখ এমনিতেই বন্ধ রাখতে পারি...

                                                (২)
বাপ মিলন আর ছেলে ঝিলনের সম্পর্ক বন্ধুর মতো। একদিন বাপ গাড়ি চালাচ্ছে আর ছেলে পাশের সিটে বসে আছে।  

ঝিলন: ফ্রেন্ড, একটা বিষয় তোমাকে জানাতে চাচ্ছি; তবে বিষয়টা তোমাকে আহত করবে মনে হচ্ছে...

মিলন: আমিও একেটা বিষয়ে তোমার কাছে দোষ স্বীকার করতে চাচ্ছি, দোস্ত। বিষয়টা না বলে স্বস্তি পাচ্ছি না... 

ঝিলন: তো আমিই আগে বলি। আমার না ফেসবুকে আমার চেয়ে বেশি বয়সের একটা মেয়ের সঙ্গে প্রেম হয়েছে...

মিলন: ওটা আমারই ফেক আইডি! পারলে ক্ষমা করিস, দোস্ত!

                                                 (৩)
শুধু দেখতে সুন্দর- এমন কোনো পুরুষকে বিয়ে করা আর রং সুন্দর দেখে ভাঙা গাড়ি কেনা একই কথা- জনৈক অভিজ্ঞ গৃহিনী

                                                (৪)
খুব আবেগঘন কথা হচ্ছে স্বামী-স্ত্রীর। অতি ফ্যাশন সচেতন 'দজ্জাল' স্ত্রীর এমন মোহময় আচরণে 'গোবেচারা' স্বামীটি কিছুটা হতভম্ব!

স্ত্রী: জানপাখি আমার, আমি মরে গেলে তুমি আবার বিয়ে করবে?

স্বামী: কী বলছো? আমি স্রেফ পাগল হয়ে যাবো! তুমি বলছো বিয়ে?

স্ত্রী: আহ্হা লক্ষ্মীটি, অমন করছো কেন? এটা একটা বাস্তববাদী প্রশ্ন। উত্তর সেভাবেই দাও। বলই না দেখি- আমি না থাকলে তুমি বিয়ে করবে কি না?

স্বামী: আসলে আমি তো তখন পাগল হয়ে যাবো আর পাগলে কী না করে...

স্ত্রী: গুড বয়! আই লাইক ইট।

তোমার রসবোধ আছে এতদিনে বুঝলাম। তো নতুন বউকে নিয়ে কি এই ফ্ল্যাটেই থাকবে?

স্বামী: নয়া ফ্ল্যাট নিয়ে ফুজুল খরচ বাড়িয়ে লাভ কী! এখানেই থাকবে।

স্ত্রী: আমার দামি দামি গয়নাগুলো সব সে পরবে?

স্বামী: মন চাইলে পরবে; এতে আমার কী বলার আছে! 

স্ত্রী: আমার হীরে বসানো অতিপ্রিয় জুতো জোড়া! ওগুলোও কি তাকে পরতে দিবে?

চোখ বুজে কিছুটা ভেবে নিয়ে স্বামী এবার বললো: না জানু, এইক্ষেত্রে একটু সমস্যা আছে!

কিছুটা খুশী হয়ে স্ত্রী: মানে! তুমি চাও না আমার খুবই পছন্দের ওই জুতো জোড়ায় আর কারও পা ঢুকুক?

স্বামী: আরে না! ওর পা তো ৬ নম্বর আর তোমার হচ্ছে ৭। হবে না...

স্ত্রী (লাফিয়ে উঠে): আমি আগেই সন্দেহ করছিলাম! এতদিনে ধরতে পারলাম তোরে! তিন তলার ওই মডেল পিঙ্কির প্রেমে পড়েছিস তুই... আজ তোর একদিন কী আমার একদিন... জুতিয়ে তোকে ক্রিকেট পিচ বানিয়ে ফেলবো...

স্বামী দৌড় শুরু করে: ওরে বাবারে, কোন ফাঁদে পড়লামরে... এইবার আমি শেষ...

                                                (৫)

বিয়ে পূর্ব ডেটিংকালে প্রেমিকের তুচ্ছাতিতুচ্ছ কথায়ও মেয়েটি হেসে ফেলে বলে: তুমি এ্যাত্তো মজার কথা বল কীভাবে? ইউ আর সো জিনিয়াস...

বিয়ের পর সেই প্রেমিকাই প্রেমিক স্বামীর ভাল কথায়ও ক্ষেপে গিয়ে বলে: দুনিয়াটারে কী চিড়িয়াখানা পাইছো! তুমি নিজেরে জোকার মনে কর? সিরিয়াস কবে হইবা আর...

                                               (৬)

বহুদিন পর দেখা দুই বন্ধু বিপুল আর মানিকের।

বিপুল: ভাবীর নামটা যেন কী বললি?

মানিক: গুগল খাতুন।

বিপুল: মানে? ভাবীর গুগল নাম রাখলো কে?

মানিক: আমি রেখেছি! একটা প্রশ্ন করলেই দশটা জবাব হাজির করে আর হাতে রাখে আরও নব্বইটা! 


মন্তব্য