kalerkantho


আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন মাওলানা জুবায়ের

ইজতেমা ময়দানে লাখো মুসল্লির জুমা আদায়

মো. মাহবুবুল আলম, টঙ্গী (গাজীপুর)   

১৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ইজতেমা ময়দানে লাখো মুসল্লির জুমা আদায়

টঙ্গীর তুরাগতীরে গতকাল থেকে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। ইজতেমায় জুমার নামাজে লাখো মুসল্লি অংশগ্রহণ করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে গতকাল শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। ইজতেমা ময়দানে গতকাল জুমার নামাজ আদায় করেছে তাবলিগ জামাতের বাইরেও ঢাকা-গাজীপুরসহ ১৬ জেলার কয়েক লাখ মুসল্লি। জুমা-পূর্ব বয়ান ও নামাজে ইমামতি করেন কাকরাইল জামে মসজিদের খতিব ও বাংলাদেশের তাবলিগ শুরার জ্যেষ্ঠ মুরব্বি হাফেজ মাওলানা জুবায়ের।

এদিকে তাবলিগ জামাতের এক পক্ষের বিরোধিতার কারণে দিল্লির মাওলানা সা’দ কান্ধলভি অংশ না নেওয়ায় আগামীকাল রবিবার বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বের আখেরি

মোনাজাত পরিচালনা করবেন কাকরাইল জামে মসজিদের খতিব মাওলানা জুবায়ের। গতকাল শুক্রবার এ ব্যাপারে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ইজতেমার সার্বিক জিম্মাদার প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন।

জুমার নামাজে ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী লাখ লাখ মুসল্লি ছাড়াও রাজধানীসহ পাশের এলাকা থেকে যানবাহন ও হেঁটে অংশ নিয়েছে লাখো মানুষ। দুপুর ১২টার দিকে ইজতেমা ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে আশপাশের খোলা জায়গাও জনসমুদ্রে পরিণত হয়। অনেকে মহাসড়ক, অলিগলিতে পাটি, চটের বস্তা, খবরের কাগজ বিছিয়ে জুমার নামাজ আদায় করে। ফলে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বেশ কিছু সময় যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে।

গতকাল বাদ ফজর জর্দানের মাওলানা সৈয়দ ওমর হায়াতি খর্তির আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ইজতেমার প্রথম পর্বের আনুষ্ঠানিকতা। বাদ জুমা বয়ান করবেন বাংলাদেশের মাওলানা মোহাম্মদ হোসেন, বাদ আসর বয়ান করেন বাংলাদেশের মাওলানা আব্দুল বাছেদ এবং বাদ মাগরিব বয়ান করেন বাংলাদেশের মাওলানা মোহাম্মদ রবিউল হক।

ইজতেমায় বাংলাদেশ, ভারত ও পাকিস্তানের তাবলিগ মারকাজের শুরা সদস্য ও বুজর্গরা বয়ান করেন। ইজতেমায় বিভিন্ন ভাষাভাষি মুসল্লিরা আলাদা বসে এবং তাদের মধ্যে একজন করে মুরব্বি মূল বয়ানকে তাৎক্ষণিক অনুবাদ করে শোনান।

বিশ্বের শতাধিক দেশের সাত হাজারের অধিক প্রতিনিধিসহ লাখো মুসল্লি বিশ্ব ইজতেমায় শীর্ষ মুরব্বিদের বয়ান শুনছে এবং ইবাদত বন্দেগিতে মশগুল রয়েছে।

আজ শনিবার ইজতেমার দ্বিতীয় দিন। আগামীকাল রবিবার জোহর নামাজের আগে যেকোনো সময় আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শেষ হবে।

বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে দেশ-বিদেশ থেকে মুসল্লিদের টঙ্গীমুখী স্রোত অব্যাহত রয়েছে। আখেরি মোনাজাত পর্যন্ত এ স্রোত আরো বাড়তে থাকবে। এদিকে গত দুই দিনে শীতের তীব্রতা বাড়ায় ময়দানে নতুন করে ফেলা বালির কারণে মুসল্লিদের ভোগান্তি বেড়েছে। ধুলায় ধূসরিত ইজতেমা এলাকায় চলাচল কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। ওয়াসা ও ফায়ার সার্ভিসের উদ্যোগে প্রধান প্রধান সড়ক ও বিদেশি মুসল্লিদের চলাচলের পথে পানি ছিটানো হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। একদিকে পানি ছিটিয়ে যাচ্ছে ওয়াসার গাড়ি, অন্যদিকে মুহূর্তে আবার ধুলায় আচ্ছন্ন হয়ে যাচ্ছে সড়কগুলো। ফলে চিকিৎসাকেন্দ্রগুলোতে ভিড় করছে সর্দি, কাশি ও পেটের পীড়া নিয়ে শত শত মুসল্লি।

দুই মুসল্লির মৃত্যু : ইজতেমা ময়দানে গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় টঙ্গীর স্টেশন রোড এলাকায় সড়ক পারাপারের সময় বাসচাপায় ঢাকার আগারগাঁও এলাকার মৃত কেরামত আলীর ছেলে মামুন মনা (৩৫) এবং মাগুরা জেলার শালিকা থানার হরিশপুর গ্রামের আবু কাওসারের ছেলে আজিজুল হক (৪৬) হূদ্যন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তাঁরা দুজনই ইজতেমায় আসা মুসল্লি বলে জানা গেছে। জানাজা শেষে নিহতদের লাশ তাঁদের নিজ নিজ গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

জুমার নামাজে ভিআইপিদের অংশগ্রহণ : শুক্রবার জুমায় মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রি আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি, গাজীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. আজমত উল্লা খান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলমসহ জেলা ও স্থানীয় নেতারা অংশ নেন।

টঙ্গী হাসপাতালে চিকিৎসা : টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে গতকাল বিকেল ৪টা পর্যন্ত প্রায় আড়াই শ মুসল্লি বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে। তাদের মধ্যে শ্বাসকষ্ট, হৃদেরাগসহ বিভিন্ন রোগজনিত কারণে চারজনকে ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে এবং তিনজনকে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. পারভেজ হোসেন।

বিদেশি মুসল্লি : ইজতেমার প্রথম পর্বে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব-আমিরাত, কাতার, কানাডা, জার্মানি, ইরান, জাপান, সেনেগাল, দ. আফ্রিকা, তানজানিয়া, রাশিয়া, আমেরিকা, বেলজিয়াম, চীন, ফ্রান্স, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, নিউজিল্যান্ড, ফিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, কুয়েত, কাতার, বাহরাইন, জর্দান, ভারত, দুবাই, মিয়ানমারসহ বিশ্বের অর্ধশত দেশের প্রায় সাড়ে তিন হাজার মুসল্লি অংশ নিয়েছে। এবারের ইজতেমায় বিশ্বের শতাধিক দেশের প্রায় ২৫ হাজার বিদেশি মেহমান আখেরি মোনাজাতে অংশ নেবে বলে আশা করা হচ্ছে।

গ্রেপ্তার : গতকাল বিকেল ৪টা পর্যন্ত টঙ্গী মডেল থানার পুলিশ পকেটমার, ছিনতাইকারীসহ বিভিন্ন অপরাধে সাতজন, তুরাগ থানার পুলিশ ১৫ জন ও উত্তরা থানার পুলিশ ১২ জনকে বিশ্ব ইজতেমা এলাকা থেকে বিভিন্ন অপরাধে গ্রেপ্তার করেছে।

মোবাইল চার্জ ২০ টাকা : ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের জন্য মোবাইল চার্জের একাধিক দোকান খোলা হয়েছে। সেখানে প্রতিটি মোবাইল ২০ টাকায় চার্জ দেওয়া হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক ও এমপি যা বললেন : গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর ও গাজীপুর-২ আসনের এমপি জাহিদ আহসান রাসেল কালের কণ্ঠকে জানান, বিশ্ব ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এলাকার পরিবেশ উন্নয়ন, ইজতেমা মাঠে যাতায়াতের সুবিধার্থে অবৈধ বস্তি ও রাস্তার দুই পাশের অবৈধ স্থাপনা, দোকানপাট উচ্ছেদের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া টয়লেট ও বিদেশি মেহমানদের অজু, গোসল, রান্না, আবাসস্থল নির্মাণ এবং পরিষ্কার-পরিছন্নতার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ইজতেমা ময়দানসহ আশপাশ এলাকায় কঠোর নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আখেরি মোনাজাত করবেন মাওলানা জুবায়ের : বিশ্ব ইজতেমায় এবারের আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করবেন তাবলিগ জামাতের বাংলাদেশে মজলিসে শুরার জ্যেষ্ঠ মুরব্বি কাকরাইল মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা জুবায়ের। গতকাল এ ব্যাপারে প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিশ্ব ইজতেমার সার্বিক ব্যবস্থাপনাবিষয়ক জিম্মাদার প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানান, মাওলানা সা’দ কান্ধলভির অনুপস্থিতিতে আখেরি মোনাজাত ও পরবর্তী আমির কে হবেন এ নিয়ে গত কয়েক দিন তাবলিগ জামাতের শীর্ষপর্যায়ে বেশ কয়েকবার বৈঠক হয়েছে। বিশ্ব তাবলিগ মার্কাজের বর্তমানে সবচেয়ে জ্যেষ্ঠ মুরব্বিদের মধ্যে পাকিস্তানের মাওলানা আব্দুল ওয়াহাবের আমির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে বাংলাদেশের মাওলানা জুবায়ের, মাওলানা মো. হোসেন ও মাওলানা রবিউল হকের মধ্য থেকেও কেউ আমির মনোনীত হতে পারেন। মাওলানা সা’দ তাবলিগ-জামাতের প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা ইলিয়াছ (রহ.)-এর দৌহিত্র হওয়ার কারণে ভারত, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো তাঁকেই আমির পদে বহাল রাখার পক্ষে। তবে বিশ্ব ইজতেমাস্থল হিসেবে বাংলাদেশের মুরব্বিদের অগ্রাধিকার রয়েছে বলে তাবলিগ জামাতের কয়েকজন মুরব্বি জানান। এদিক থেকে বাংলাদেশের কোনো মুরব্বি আমির মনোনীত না হলেও আখেরি মোনাজাত পরিচালনার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের মুরব্বিদের প্রতি বিদেশি মুরব্বিদের সমর্থন রয়েছে। বিশ্ব তাবলিগ মার্কাজের ১৩ সদস্যের মধ্যে বাংলাদেশের একমাত্র সদস্য হাফেজ মাওলানা জুবায়েরের ওপর আপাতত আখেরি মোনাজাত পরিচালনার দায়িত্ব ন্যস্ত করার বিষয়ে দেশ-বিদেশের মুরব্বিরা একমত।


মন্তব্য