kalerkantho


ঢাকায় নারীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে উবারের বিবিধ ব্যবস্থা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৮:০৪



ঢাকায় নারীদের যাতায়াতের সুবিধার্থে উবারের বিবিধ ব্যবস্থা

ছবি : কালের কণ্ঠ

অ্যাকশন এইডের একটি জরিপ অনুযায়ী, দেশের ৪৭ শতাংশ নারী রাস্তায় বা গণপরিবহনে চলাচলের সময় নিরাপত্তাহীনতায় ভুগে থাকেন। গণপরিবহনে মহিলাদের জন্য বরাদ্দ আসনগুলো যেমন যৎসামান্য তেমনি বেশির ভাগ সময়ই কিছু পুরুষ কখনো জেনে আবার কখনো না জেনে সেগুলো দখল করে রাখেন। তাছাড়া যেভাবে গণপরিবহনগুলো চলাচল করে তা নারীদের জন্য একেবারেই বন্ধুসুলভ না। অতিরিক্ত মানুষের ভিড়, ধাক্কাধাক্কি আর চলন্ত গাড়িতে উঠানো বা নামানোর মতো বিপদজনক ব্যবস্থা মহিলাদের গণপরিবহন বিমুখ করে তুলেছে।

পেশাজীবী নারীদের কারণে আজ দেশের অর্থনীতি অনেক অগ্রসরমান। কিন্তু গণপরিবহনে যাতায়াতের ভয়ে তারা অনেকেই ঘরের বাইরে বের হতে চান না। শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য পরিবহন ব্যবস্থায় কিছু পরিবর্তন আনা প্রয়োজন যা তাদের যাতায়াত ব্যবস্থাকে নিরাপদ এবং আরামদায়ক করে তুলবে। এই সমস্যা নিষ্পত্তিতে রাইডশেয়ারিং সার্ভিস হতে পারে কার্যকর সমাধান।

যেসকল কারণে মহিলারা উবার পছন্দ করবেনঃ

১. অন-ডিমান্ড ট্রান্সপোর্টেশন: মাত্র একবার বাটনে চাপ দেওয়ার মাধ্যমে যেকোনো সময়, যেকোনো স্থানে রাইডারদের নিরাপদ, নির্ভরযোগ্য, সুবিধাজনক ও আরামদায়ক ভ্রমণের মান নিশ্চিত হয়। ২৪ ঘণ্টা চালু থাকার কারণে গণপরিবহনের বিকল্প হিসেবে উবার অত্যন্ত উপযোগী একটি মাধ্যম।

২. সেফটি ফিচারঃ নারীরা উবারের মাধ্যমে নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণ উপভোগ করতে পারেন। “শেয়ার স্ট্যাটাস”, লাইভ জিপিএস ট্র্যাকিং, ভেরিফাইড পার্টনার এবং টু-ওয়ে ফিডব্যক” সুবিধা থাকছে উবার অ্যাপে।

৩. গণপরিবহনের বিকল্প: রাইডশেয়ারিং সার্ভিস নারীদের যাতায়াত ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনেছে। সামর্থ্য অনুযায়ী উবার এক্স, উবার প্রিমিয়ার এবং উবারমটো নামে উবারের তিন ধরনের সার্ভিস ঢাকায় চালু আছে।


উবারের সেফটি ফিচারঃ

ভেরিফাইড ড্রাইভারঃ সকল কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে তবেই ড্রাইভার পার্টনার নিয়োগ দেওয়া হয়।

জিপিএস ট্র্যাকড ট্রিপঃ যাতায়াত করার সময় রাইডার “রিয়েল-টাইম জিপিএস ট্র্যাকিং” সুবিধার মাধ্যমে কোন দিক দিয়ে যাচ্ছেন সেটা লক্ষ্য রাখতে পারবেন।

শেয়ার স্ট্যাটাসঃ 'শেয়ারিং স্ট্যাটাস' সুবিধার মাধ্যমে যাত্রাপথের বর্ণনা যেমনঃ গাড়ির তথ্য, ড্রাইভারের নাম ও রেটিং ইত্যাদি নিজের আপনজনদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

টু-ওয়ে ফিডব্যাকঃ টু-ওয়ে রেটিং ব্যবস্থা রাইডার এবং ড্রাইভার পার্টনারদের একে অপরের সাথে ভালো ব্যবহার ও সন্মান প্রদর্শন করতে উদ্বুদ্ধ করে।

জাতিয় হেলপলাইন ৯৯৯ : উবার তার অ্যাপে নতুন এক ফিচার যোগ করেছে যার মাধ্যমে সরাসরি জাতিয় হেলপলাইন সার্ভিস নাম্বার ৯৯৯ –এ কল করা যাবে। এর মাধ্যমে অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, পুলিশ এবং সরকারি এজেন্টদের যেকোনো সময় কাছে পাওয়া যাবে।

অ্যাপের মধ্যকার হেলপ সেকশনঃ রাইডাররা অ্যাপের 'পাস্ট ট্রিপ সেকশন'এ যেয়ে পূর্বের রাইড সম্বন্ধে ফিডব্যাক দিতে পারবেন।

এক নজরে উবার:

২২ নভেম্বর ২০১৬ তারিখে 'উবার এক্স' এর মাধ্যমে ঢাকাতে উবারের যাত্রা শুরু হয়। সম্প্রতি উবার তাদের প্রথম বর্ষপূর্তি জাঁকজমকভাবে উদযাপন করে। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখে উন্নতমানের গাড়ি নিয়ে তাদের নতুন রাইডশেয়ারিং সার্ভিস 'উবার প্রিমিয়ার' শুরু করে। রাইডার এবং ড্রাইভার পার্টনারদের মতামত নেওয়ার পর তারা নতুন এই সার্ভিসের সূচনা করেন। পরে ১৪ নভেম্বর ২০১৭ তারিখে 'উবারমটো' নামে উবারের বাইকশেয়ারিং সার্ভিস শুরু হয় যা সাধারণ মানুষের জন্য আরও সুবিধাজনক। বর্তমানে উবারের এই তিনটি সার্ভিস ঢাকাতে চালু রয়েছে।

সময়ের সাথে সাথে উবারে গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু ফিচারের সংযোজন হয়েছে যেমনঃ জাতিয় হেলপলাইন ৯৯৯, ড্রাইভার কমপ্লিমেন্ট এবং মাল্টিপাল ডেস্টিনেশন। এছাড়াও একটি কমিউনিটি গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে যা অ্যাপটি সম্বন্ধে বিস্তারিত ধারণা দিবে এবং যা রাইডার এবং ড্রাইভার পার্টনারদের একে অপরের প্রতি শ্রদ্ধাশীল করে তোলে।


মন্তব্য