kalerkantho


খাবারে বিষক্রিয়া ঘটায়...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ মে, ২০১৮ ০৮:১৩



খাবারে বিষক্রিয়া ঘটায়...

ছবি অনলাইন

প্রক্রিয়াজাত সবজি-ফল

যেকোনো সবজি-ফল ধুয়ে ও কেটে খেতে হয়। কিন্তু আগে থেকে ধোয়া ও কাটা, বিশেষত প্রক্রিয়াজাত সবজি-ফল প্লেগের মতো ভয়াবহ হতে পারে। এত বেশি মানুষ এসব খাবারে হাত লাগায় যে তা মারাত্মক ক্ষতির শঙ্কা তৈরি করে। তাই এসব খাবার এড়িয়ে চলা উচিত।

সদ্য অঙ্কুরিত সবজি

অদ্ভুত হলেও সত্য, সদ্য অঙ্কুরিত সবজি সালমোনেলা ব্যাকটেরিয়া এবং ই কোলি ভাইরাসের স্বর্গরাজ্য। এ ধরনের খাবার যারা খায়, তারা খাদ্যে বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়।

কম তাপে রান্না মাংস

শেফরা নানা পদ্ধতিতে নতুন নতুন রেসিপি বানিয়ে থাকেন। বিশেষ করে কম তাপমাত্রায় যত সুস্বাদু মাংসই রান্না হোক না কেন, তাতে সালমোনেলা এবং ই কোলি থেকেই যায়। তাই মাংস অন্তত ১৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় রান্না করতে হবে।

কাঁচা ডিম

অনেকেই কাঁচা ডিমকে বেশি স্বাস্থ্যকর বলে মনে করেন। আশির দশকে যুক্তরাষ্ট্রে কাঁচা ডিম বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। সে সময় সালমোনেলা রীতিমতো মহামারি আকারে দেখা দেয়। ডিম রান্না না করা পর্যন্ত তা ব্যাকটেরিয়ামুক্ত হয় না। তাই ডিম খাওয়ার আগে অবশ্যই তা চুলায় দিতে হবে।

অপাস্তুরিত দুধ ও ফলের রস

বলা হয়ে থাকে, পাস্তুরাইজেশন দুধ ও ফলের রসের পুষ্টিগুণ হ্রাস করে। মারলারের মতে, পাস্তুরাইজেশন মোটেই ক্ষতিকর নয়। বরং ক্ষতিকর পাস্তুরায়ন না করা। কাঁচা দুধ ও ফলের রসে যথেষ্ট পরিমাণ ভাইরাস, ব্যাকটেরিয়াসহ নানা জীবাণু থাকে। পাস্তুরিত হলেই এগুলো দূর হয়। তাই কাঁচা দুধ বা ফলের জুস খেলে বিষক্রিয়া ঘটার শঙ্কা থাকে।

-- ইনডিপেনডেন্ট অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার


মন্তব্য