kalerkantho


স্কুলের ক্লাসরুমে নয়, শিক্ষা হোক প্রকৃতির মাঝে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০১:৩৩



স্কুলের ক্লাসরুমে নয়, শিক্ষা হোক প্রকৃতির মাঝে

ভোর বেলায় ওঠা, সেই একঘেয়ে স্কুল, ক্লাসরূম। প্রতিদিন কার ভাল লাগে বলুন তো? শিশুদের কেন ভাল লাগবে প্রতিদিন একই রুটিন।

তাই, স্কুলের বেঞ্চ, চক, ডাস্টার, বই সবকিছুকে ওই চার দেওয়ালের মধ্যেই ছেড়ে রেখে গোটা একটা দিন বাইরে খোলা আকাশের নিচে কাটালে কেমন হয়? খেলার মধ্যে দিয়ে যদি কিছু শেখানো যায় যেটা সব ছাত্র-ছাত্রীদের অনুপ্রাণিত করবে।

কেমন হয় বলুন তো? আর এভাবেই জনপ্রিয় হচ্ছে “আউটডোর ক্লাসরুম ডে”। আর ১২ই অক্টোবর হচ্ছে সেই ‘‘ইন্টারন্যাশান্যাল আউটডোর ক্লাসরুম ডে’’।

কেন এই আউটডোর ক্লাসরুম? বহিঃশিক্ষা সব ছাত্র-ছাত্রীদের শরীর, মন ভাল রাখতে সাহায্য করে, প্রাণচ্ছ্বল করে তোলে। দলগত ভাবে কাজ করবার একটা উৎসাহ দেয়। প্রকৃতির সাথে একটা সম্পর্ক তৈরি হয় যেটা তাদের মানসিক ভাবে ভাল শিক্ষার উৎস হয়। সবচেয়ে বড় কথা, সাহায্য করে শৈশবের আনন্দকে উপভোগ করতে। মানসিক বিকাশ ঘটে শিশুদের মধ্যে।

আজকাল শিশুদের ওপর বইয়ের চাপের সঙ্গে থাকে মানসিক চাপ বা বলা যায় বাবা মায়েদের ইচ্ছাপূরনের চাপ।

সেই চাপ থেকে একদিনের জন্যও যদি বের হতে পারে শিশুরা, তা তাদের জীবনের পক্ষেও মঙ্গল। প্রকৃতির শিক্ষাও দরকার প্রথাগত স্কুল শিক্ষার মাঝেই, বলছেন শিশু বিশেষজ্ঞরাও।

১২ অক্টোবর দিনটাকে “আউটডোর ক্লাসরুম ডে” বলে উদযাপন করে গোটা বিশ্ব। ২০১২ সালে লন্ডনের Handful of School প্রথম উৎযাপন করে এই “আউটডোর ক্লাসরুম ডে”। একটি নতুন চিন্তাধারায় ছাত্র ছাত্রীদের নতুন কিছু শেখানোর পথ খুলে যায়। তারপর এই দিনটি পালন করা শুরু করে প্রায় গোটা বিশ্বের সব স্কুল।

২০১৫ সালে প্রায় ১৫ টি দেশের ৬০০ এর বেশী স্কুল এই দিনটিকে উৎযাপন করে। ২০১৬ থেকে “আউটডোর ক্লাসরুম ডে” তে শিশুদের স্কুলের যোগদানের সংখ্যা ক্রমেই বাড়তে থাকে। বেড়েছে বিশ্বের প্রায় দেশের যোগদানের সংখ্যাও।


মন্তব্য