kalerkantho


ডাইনোসরখেকো দানব কুমিরের সন্ধান!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ২০:১৬



ডাইনোসরখেকো দানব কুমিরের সন্ধান!

দানব কুমিরটির বেশি কিছু মেলেনি

আজ থেকে ৬৬ মিলিয়ন বছর আগে ক্রেটাসিয়াস যুগের এক কুমিরের জীবাশ্ম আবিষ্কৃত হয়েছে। টেক্সাসের ডালাস-ফোর্ট ওর্থ অঞ্চলে এটি পাওয়া গেছে।

ডাইনোসর যুগে সেই টিরানোসোরাসের দোর্দণ্ড প্রতাপের কথা মানুষ জানতে পেরেছে। আরো বিভিন্ন প্রজাতির বিশাল আকৃতির ডাইনোসররাই ছিল সবচেয়ে ক্ষমতাবান। কিন্তু পুরো ২০ ফুট লম্বা ওই কুমির নাকি ডাইনোসরখেকো ছিল! তাহলে বুঝুন, কি অসম্ভব শক্তির অধিকারী ছিল ওটা।  

অস্টিনমোথেরাল নামের স্থানীয় এক কিশোর ওটাকে খুঁজে পায়। প্রাচীন এই ভয়ংকর দানবটির নাম ছিল ডেল্টাসুচাস মোথেরাল। কিশোরের নামটি এই বিস্ময়কার আবিষ্কারের সঙ্গে জড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। মোথেরার মূলত ইউনিভার্সিটির টেনেসার জীবাশ্মবিদদের সঙ্গে কাজ করে। এই কুমিরের হাড়গোড় খনন করে বের করতে এক যুগের মতো সময় লেগে গেছে।  

পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর মনে করা হচ্ছে, এই প্রাণীটির বাস ছিল ৯৫ মিলিয়ন বছর আগে।

ঠিক সেই সময় টিরানোসরাস রেক্সের বাস ছিল। আজকের আধুনিক টেক্সাসেই ছিল আরো বিভিন্ন প্রজাতির ডাইনোসর, কচ্ছপ, কুমির আর স্তন্যপায়ী প্রাণী এবং মাছেদের বাস।  

জীবাশ্মবিদ স্টিফেন ড্রামহেলার-হর্টন বলেন, এই জীবাশ্ম এবং কামড়ের দাগগুলো পরীক্ষা করে বোঝা যায়, প্রাণীটি তাই খেতো যা খেতে মন চাইতো। সেই যুগের এখনও অনেক কিছু জানা বাকি রয়েছে। উত্তর আমেরিকায় ক্রেটাসিয়াসের মাঝামাঝি যুগের খুব বেশি ফসিলের সন্ধান আমাদের কাছে নেই। ডাইনোসরের শেষ সময় তখন। বিশেষ করে পূর্বের অর্ধেক মহাদেশ সম্পর্কে খুব কমই জানি আমরা। তবে আর্লিংটন আর্চোসার সাইট থেকে পাওয়া ফসিলগুলো এই অভাব কিছুটা ঘোঁচাতে পেরেছে। ডেল্টাসুচাস নতুন প্রজাতির গুটিকয়েক প্রাণীর একটি যেগুলো ওই স্থানে খুঁজে পাওয়া গেছে। সূত্র : ফক্স 


মন্তব্য