kalerkantho


থার্মোমিটার ভেঙে যাওয়া ঠাণ্ডা যেখানে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ২১:২৫



থার্মোমিটার ভেঙে যাওয়া ঠাণ্ডা যেখানে

রাশিয়ার ওইমিয়াকন বিশ্বের শীতলতম গ্রাম। মঙ্গলবার সেখানে তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নীচে তো বটেই, নেমে গেছে মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। উত্তর-পূর্ব রাশিয়ায় সাইবেরিয়া অঞ্চলের এই গ্রামটির বর্তমান অবস্থা নিয়ে আজকের প্রতিবেদন।

ইয়াকুশা
ইয়াকুশা, মস্কো থেকে ৩ হাজার ৩শ’ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত। সেখানে মাইনাস ৪০ ডিগ্রিতেও স্কুল খোলা থাকে। রবিবার সেখানে প্রচণ্ড ঠান্ডায় জমে মারা গেছেন দুইজন। গাড়ি নষ্ট হওয়ায় রাস্তায় বের হওয়ার পর তারা ঠাণ্ডায় জমে যান।

বিশ্বের শীতলতম গ্রাম
ইয়াকুশা’র গ্রাম ওইমিয়াকনে মঙ্গলবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মানুষের বসতি আছে এমন স্থানের মধ্যে শীতলতম ওইমিয়াকন।

পারদভাঙা ঠাণ্ডা
মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস ডিজিটাল থার্মোমিটার ধারণ করতে পারে না, অর্থাৎ ভেঙে যায়। কেননা, এই থার্মোমিটারে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা দেয়া আছে মাইনাস ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

স্কুল ছুটি
এরকম প্রচণ্ড ঠাণ্ডা পড়লে স্থানীয়রা আশ্রয়শিবিরে চলে যান। স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। রাস্তায় হঠাৎ দু’ একজনকে চোখে পড়ে, তারা হয়ত সেলফি তোলার জন্য বের হন, অর্থাৎ চোখের পাতা জমে কেমন হয় সেটার ছবি তোলেন।

তাপমাত্রা হিমাঙ্কের অনেক নীচে
প্রত্যন্ত এই গ্রামটি সবসময়ই বরফে ঢাকা থাকে। কিন্তু শীতকালে ভয়াবহ ঠান্ডা পড়ে সেখানে। এই গ্রামে থাকেন প্রায় ৫০০ জন মানুষ। গ্রীষ্মের সময়ে আগে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকত ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি, ২০১০ সালে সেই তাপমাত্রা পৌঁছেছিল ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

১৯৩৩ সালের রেকর্ড
এখানকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ডটটি ছিল ১৯৩৩ সালে, মাইনাস ৬৭ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মানুষের বসতি আছে এমন স্থানে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড এটি। নাসা থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড অ্যান্টার্কটিকায়, মাইনাস ৯০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে।

-ডিডাব্লিউ


মন্তব্য