kalerkantho


চুরি করে গ্রেপ্তার এড়াতে মহিলার কাণ্ড, পুলিশের আক্কেল গুড়ুম!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ জুলাই, ২০১৮ ১৭:২৮



চুরি করে গ্রেপ্তার এড়াতে মহিলার কাণ্ড, পুলিশের আক্কেল গুড়ুম!

প্রতীকি চিত্র

দুই নারী চোর- তারা ফ্লাটবাড়িতে চুরি-চামারি করে থাকে। মুম্বাই ও আশপাশের বিভিন্ন অ্যাপার্টমেন্টে চাকরি খোঁজার কথা বলে তারা অনুপ্রবেশ করে। তারপর বাসাবাড়ির ভালমন্দ পরখ করে মালামাল নিয়ে পালানোর  পরিকল্পনা করে। পরে সুযোগমতো মিশনে নামে। 

এই দুইজন চোর সহোদর বোনও বটেন। 

তাদের বিরুদ্ধে এমন বেশকিছু অভিযোগ ছিল। মুম্বাইর অভিজাত এলাকা জুহু, সান্টাক্রুজ, বনরাই, খার থেকে নিয়ে ঘাটকোপর এলাকা পর্যন্ত অনেক বাড়ি থেকেই মালামাল চুরি করেছেন তারা। সিসিটিভি ফুটেজে তাদের সনাক্তও করা গেছে- তবে ধরা যাচ্ছিল না। 

তো সেদিন এক পুলিশ কর্মকর্তা হঠাৎ ওই মানিক-জোর বা চোরকে একসঙ্গে দেখে ফেলেন এক বিপনী বিতানে। তিনি তাদের গ্রেপ্তারে তৎপর হতেই চোরনিদের একজন নিজের জামাকাপড় ছিঁড়ে ফেলতে শুরু করেন এবং চেঁচামেচি করে লোকজনকে বলতে থাকেন পুলিশ বাবু তার ওপর যৌন হয়রানি বা শ্লীলতাহানি ঘটাতে চাচ্ছে। বিষয়টি বুঝতে পেরে পুলিশকর্তা চোখেমুখে অন্ধকার দেখেন। তবে তার সঙ্গীরা ঘটনা স্থানীয় থানায় জানালে দ্রুত নারী পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে আসে।

নারী পুলিশকেও বহু কসরৎ করতে হয় চোর দুই বোনকে পাকড়াও করতে- তবে শেষমেষ তাদেরকে আটক করতে সক্ষম হয় পুলিশ দল। দেখা যায়- তাদের একজন গ্রেপ্তার এড়ানোর ফন্দি হিসেবে নিজের ব্লাউজ ও অন্তর্বাসও ফিঁড়ে ফেলেছিলেন।

জনসত্তা.কম জানায়, সম্প্রতি এই হাই ভোল্টেজ ড্রামার ঘটনা ঘটে মুম্বাইর মালাড এলাকার হীরা বাজারে। দুই বোনের নাম সারিতা আর সুজাতা, বয়স ৩০ থেকে ৩৫ বছর। তাদের বিরুদ্ধে মুম্বাই শহরে ১০টি বাড়িতে চুরি ও লুটপাটের অভিযোগ রয়েছে। 



মন্তব্য