kalerkantho


ঘরেই সাফ-সুতরো করতে পারেন মোটরবাইক

ধুলা-কাদা দুটিই মোটরসাইকেলের জন্য ক্ষতিকর। নষ্ট হতে পারে বিভিন্ন যন্ত্রাংশ। সবসময় গ্যারেজে না গিয়ে নিজেও ধুয়ে করে নিতে পারেন সাফ-সুতরো। কিভাবে? জানাচ্ছেন রিদওয়ান আক্রাম

১৩ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



ঘরেই সাফ-সুতরো করতে পারেন মোটরবাইক

# মোটরসাইকেলে ময়লা জমে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয় ইঞ্জিনের। সম্ভব হলে প্রতিদিনই মোটরসাইকেল ধোয়া ভালো।

এ কাজে দরকার পড়বে শ্যাম্পু, গ্লাভস, কয়েক ধরনের ব্রাশ, স্পঞ্জ, হোসপাইপ ও মোছার জন্য মোটা সুতি কাপড় বা তোয়ালে।

প্রথমে বাইকে লেগে থাকা কঠিন ময়লা নরম করার জন্য পানি ঢালতে হবে। পানির সঙ্গে শ্যাম্পুও যোগ করা যেতে পারে। পানি গরম হলে বেশি ভালো। পানির দেওয়ার পরেও যেসব ময়লা নিজে থেকে নরম হয়ে পড়ে যায়নি, সেগুলো স্পঞ্জ দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করতে হবে। স্পঞ্জের ঘষা যাতে জোরে না লাগে, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

# ইঞ্জিনের সঙ্গে অনেক প্রয়োজনীয় কেব্ল্ যুক্ত থাকে। তাই ইঞ্জিন ধোয়ার সময় যাতে কেব্ল্গুলো নড়েচড়ে না যায়, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

# এগজস্ট নলের মুখে নানা রকম তেলজাতীয় ময়লা জমে থাকে।

এগুলো কাঠিজাতীয় কিছু দিয়ে সাবধানে খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে পরিষ্কার করতে হবে। এর পরও যদি ময়লা বের না হয়, তাহলে বাইক চালু করে পিকাপ সর্বোচ্চ দিলেই এগজস্ট পাইপের ভেতরের দিকে থাকা দলা পাকানো ময়লা বের হয়ে আসবে।

# এগজস্ট নল থেকে  জুতার দাগ পরিষ্কার করার জন্য ক্লিনজার (বিশোধক) ব্যবহার করা যেতে পারে।

# তেল ও কালির দাগ পরিষ্কার করার জন্য ‘ডিগ্রেজার’ ব্যবহার করতে পারেন।

# চাকায় অসংখ্য ছোট ছিদ্র থাকে। তাই চাকাগুলো পরিষ্কার করার জন্য তারের ব্রাশ ব্যবহার করা যেতে পারে। ব্রাশ দিয়ে ঘষে চাকাগুলো আরো ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে হুইল ক্লিনজারও ব্যবহার করা যায়। ইস্পাতের অ্যাংরিলগুলো তারের ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে।

# মোটামুটিভাবে ময়লা পরিষ্কার হয়ে গেলে হোসপাইপের মাধ্যমে পানি দিয়ে বাইকটি চূড়ান্তভাবে ধুতে পারেন। এ জন্য ‘হাই প্রেসার ওয়াটার স্প্রে গান’ (অনেকটা ছোট পিস্তলের মতো দেখতে এক ধরনের কল) ব্যবহার করতে পারেন। এ ধরনের স্প্রে থেকে বেশ দ্রুত বেগে পানি বের হয়।

# বাইক ধোয়ার পর বাইকটাকে একটু শুকাতে দিন। সময় না থাকলে কটনের নরম তোয়ালে দিয়ে সাবধানে মুছে ফেলুন।

# বাইকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ‘শাইনিং ক্রিম’ দিতে পারেন। দাম পড়বে ১৮০ থেকে ২৫০ টাকা পর্যন্ত। এটা আবার স্প্রে হিসেবে পাওয়া যায়। দাম ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা।

# ক্রিম দিয়ে কিছুক্ষণ রেখে পরিষ্কার কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন আপনার বাইক। এবার দেখুন আপনার বাইক কেমন সুন্দর দেখাচ্ছে।


মন্তব্য