kalerkantho


আসুন, বিপন্ন মানবতার পাশে দাঁড়াই

আজিজুল পারভেজ   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২১:৩৫



আসুন, বিপন্ন মানবতার পাশে দাঁড়াই

জ্বলছে আরাকান, পুড়ছে মানবতা। এরই মধ্যে রচিত হয়েছে একাবিংশ শতাব্দিতে গণহত্যার নতুন ইতিহাস।

বিংশ শতাব্দিতে গণহত্যার বড় নজির দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। তারপর বাংলাদেশের একাত্তরের গণহত্যা।  

যারা একাত্তর দেখেননি কিংবা একাত্তরে বাংলাদেশে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর নৃশংসতা ও বর্বরতাকে যারা আমলে নেন না তাদের 'অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য একটি বিরল সুযোগ' হাজির হয়েছে বার্মা সীমান্তে, কক্সবাজারে।  

মিয়ানমারের সামরিক বাহিনী ও কট্টর ধর্মবলম্বীদের গুলি, জবাই, অগ্নিসংযোগ এর মাধ্যমে এরই মধ্যে গণহত্যার শিকার হয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। মৃত্যুর মুখোমুখি হয়ে দিনের পর দিন পায়ে হেটে যারা বাংলাদেশে পৌঁছাতে পেরেছেন, তারা নিজেদের ভাগ্যবান মনে করছেন। কিন্তু এই 'ভাগ্যবান' কয়েক লাখ মানুষ এখন চরম দুর্দশায়। কয়েক লাশ মানুষের নিশ্চিন্তে ঘুমানোর মতো আশ্রয় তৈরি করা যদিও সময়সাপেক্ষ। তার উপর বৃষ্টি-বর্ষণ নিরাপদ আশ্রয়ে আসার পরও মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড় করিয়েছে কয়েক লাখ রোহিঙ্গাকে। বিশেষ করে শিশু, বৃদ্ধ গর্ভবতী নারীদের।

অন্যদিকে অভুক্ত মানুষগুলোর সবার মুখে অন্নও পড়েনি।

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের নিপীড়নের ভয়াবতা ও বর্তমানের দুর্দশার চিত্রে শিহরিত না হয়ে উপায় নেই। আমাদের ঘুনেধরা আমলাতন্ত্র, সরকারি 'চাকুরেরা' কতদিনে যে সবার মুখে অন্ন আর সবার জন্য আশ্রয়ের ব্যবস্থা করতে পারবে তা কেউ জানে না। এ অবস্থায় স্বেচ্ছাসেবীদের এগিয়ে যাওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।  

আসুন, বিপন্ন মানবতার পাশে দাঁড়াই।  যার যা আছে তাই নিয়ে।

লেখক : সাংবাদিক


মন্তব্য