kalerkantho


তিন বছরের শিশু শাহিদা ভিক্ষা করতে মা'কে পথ দেখায়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ জুলাই, ২০১৮ ১৯:৪৭



তিন বছরের শিশু শাহিদা ভিক্ষা করতে মা'কে পথ দেখায়

পড়তে বা লিখতে না পারলেও হাতে বই আর কলম। কাঁধে অন্ধ মায়ের হাতে থাকা সাদা ছড়ি। আর এভাবেই মাকে পথ দেখিয়ে প্রতিটি দোকানে দোকানে নিয়ে যাচ্ছে তিন বছরের শিশু শাহিদা। যে বয়সে মায়ের কোলে চড়ে বেড়ানো বা আনাচে কানাচে খেলা করে সময় কাটানোর কথা সেই দুরন্তপনা বয়সে মায়ের লাঠি ধরে পথ দেখিয়ে ভিক্ষা করতে সহায়তা করে শিশুটি।

প্রতিদিন এমন দৃশ্য চোখে পরে ঝিনাইদহের মহেশপুর পৌর এলাকায়। কাঁধে অন্ধ মায়ের সাদা ছড়ি নিয়ে পথ দেখিয়ে চলে শিশু শাহিদা। আর সেই পথ অনুসরন করে পিছু পিছু হাঁটছেন অন্ধ মা কাজল বেগম। অন্ধ কাজল বেগমের বাড়ি মহেশপুর উপজেলার এসবিকে ইউপির খালিশপুর হাইস্কুলপাড়ায়। মাঝে মাঝে কোটচাঁদপুর রেলস্টেশন পাড়াও থাকেন কাজল বেগম।

স্বামী আব্দুর রাজ্জাক দ্বিতীয় বিয়ে করে চলে গেছে। তখন মেয়ে শাহিদা অনেক ছোট। সেই থেকে ভিক্ষা করে মা-মেয়ের দিন চলে। স্থানীয় ইউপি মেম্বর ও চেয়ারম্যানের কাছে প্রতিবন্ধি কার্ড করার জন্য বেশ কয়েকবার গিয়েছে কাজল। তারা অন্ধের কথা আমলে নেয় না। মনের ক্ষোভে তাদের কাছে আর যায় না কাজল।

তার ইচ্ছা মেয়ে শাহিদাকে মাদরাসায় পড়ানোর । কিন্তু সেই সাধ্য নেই। কাজল বেগম মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলামের কাছে একটি প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড দাবি করেছেন। আশা করি ইউএনও সাহেব এই অন্ধ মহিলার প্রতি সদয় হবেন।

আসিফ কাজল; গণমাধ্যমকর্মী, ঝিনাইদহ



মন্তব্য