kalerkantho


সারদা হবে 'সেন্টার অব এক্সিলেন্স': প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী    

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৩:০৬



সারদা হবে 'সেন্টার অব এক্সিলেন্স': প্রধানমন্ত্রী

রাজশাহীর সারদাহে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিকে সেন্টার অব এক্সিলেন্স হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে রাজশাহীর চারঘাটের সারদাহে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি মাঠে ৩৪তম ব্যাচের সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজে এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, "আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে পুলিশও শহীদ হয়েছে। সারদাহ পুলিশ একাডেমিরও বড় ভূমিকা রয়েছে। মহান মুক্তিযুদ্ধে পুলিশের বিরাট ভূমিকা রয়েছে বলেই আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর স্বাধীনতা পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। ''

পুলিশের নবীন কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, "আমি চাই আমাদের নবীন কর্মকর্তারা জীবনের এই গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তে আপনারা দেশ-মাতৃকাকে ভালোবেসে আপনাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করবেন। আমাদের মহান নেতা সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীনতা অর্জন করেছি। আজকে স্বাধীনতা অর্জন করতে পেরেছি বলেই আমরা সুযোগ পাচ্ছি আমাদের নিজস্ব পুলিশ বাহিনীকে আরো শক্তিশালী হিসেবে গড়ে তুলতে। আমাদের পুলিশ বাহিনীকে দেশের রক্ষক হিসেবে দেখতে চাই। "

পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, "আমি আমাদের পুলিশ বাহিনীকে সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই। দেশের প্রচলিত আইন, সততা আর নৈতিক মূল্যবোধই হবে পেশাগত দায়িত্ব পালনের পথপ্রদর্শক।

"

প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজে যোগদান ও কয়েকটি উন্নয়ন প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে রাজশাহী পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টারটি চারঘাটের সারদাহে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমির মাঠে অবতরণ করে। পরে সকাল ১১টার দিকে ৩৪তম ব্যাচের সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

সারদাহে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমিতে শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের সমাপনী কুচকাওয়াজ শেষে বিকেলে তিনি নগরের উপকণ্ঠ হরিয়ান সুগার মিল মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় ভাষণ দেবেন।

কুচকাওয়াজে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল এ কে এম শহিদুল হক প্রমুখ।


মন্তব্য