kalerkantho


মিয়ানমার সেনাপ্রধানের দাবিকে ভিত্তিহীন বললেন তোফায়েল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ১৭:৩১



মিয়ানমার সেনাপ্রধানের দাবিকে ভিত্তিহীন বললেন তোফায়েল

ছবি : সংগৃহীত

মিয়ানমারের রাখাইন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া উদ্বাস্তু রোহিঙ্গাদের নিয়ে দেশটির সেনাপ্রধান মিন অং হ্লাইং এর অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে খারিজ করে দিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। আজ শুক্রবার রাজধানীর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটিতে শোকেস কোরিয়া ২০১৭ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গারা প্রায় দুই শতক আগ থেকেই রাখাইনে বসবাস করে আসছে। ১৮২৪ সালে বৃটিশ-বার্মা যুদ্ধে বার্মা পরাজিত হলে বৃটিশরা বার্মা দখল করেছিল। তার আগ থেকে রোহিঙ্গা মুসলিমরা আরাকান বা রাখাইন রাজ্যের তিনটি নদীর পাশে বসবাস করে আসছে।

সেখানে একজন বার্মিজ রাজা ছিলেন। তিনি ছিলেন ধর্মনিরেপক্ষ, সেই রাজদরবারে উপবিষ্ট কবি আলাউল, দৌলত কাজী ছিলেন মুসলমান। আর মিয়ানমারের জেনারেল বলে দিলেন, ‘এরা বাংলাদেশি’। এটি মিথ্যা, অসত্য- মানুষ বলতো মগের মুল্লুক, আসলেই তাই।

বুধবার ইয়াঙ্গুনে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত স্কট মারসিয়েলের সঙ্গে বৈঠকে রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরেন মিয়ানমার সেনাপ্রধান হ্লাইং। রাখাইন পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদমাধ্যমে সঠিক তথ্য আসছে না দাবি করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে পালিয়ে যাওয়া বাঙালির সংখ্যা নিয়ে অতিরঞ্জন করা হচ্ছে।

তোফায়েল বলেন, এর মধ্যে ৫ লাখের বেশি রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। আগে থেকেই ৫ লাখের মতো ছিল। সব মিলে ১০ লাখ হয়েছে। বাকি যারা আছে তাদেরও বিতাড়িত করছে, সেখানে তারা শিল্পাঞ্চল করবে, ইপিজেড করবে।

তোফায়েল বলেন, আগে মিয়ানমার বলেছিল, ১৯৪৮ সালে বার্মা স্বাধীন হওয়ার আগে যারা ছিল তাদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। এখন তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে ১৮২৪ সালের আগে রাখাইন রাজ্যে ছিল তাদেরকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। ১৮২৪ সালের কারও হাড়ও পাওয়া যাবে না। দাম্ভিকতার সাথে অমানবিকভাবে মিয়ানমারের সেনাপ্রধান বলে দিলেন ওরা বাংলাদেশি। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে তাদের মাতৃভূমিতে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের প্রতি চাপ অব্যাহত রাখতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।


মন্তব্য