kalerkantho


বেসিক ব্যাংকের কেলেঙ্কারি

দ্বিতীয় দফায় বাচ্চুকে জিজ্ঞাসাবাদ করলো দুদক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২২:১৭



দ্বিতীয় দফায় বাচ্চুকে জিজ্ঞাসাবাদ করলো দুদক

বেসিক ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারির ঘটনায় দ্বিতীয়বারের মতো ব্যাংকটির সাবেক চেয়ারম্যান আবদুল হাই বাচ্চুকে জিজ্ঞাসাবাদ করলো দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বুধবার বিকেল পৌনে ৫টার দিকে দুদক কার্যালয় থেকে বেরিয়ে যান বাচ্চু।

তবে তিনি সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেননি।

জানা গেছে, সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদক কার্যালয়ে যান বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান। মাঝখানে বেলা ২টার দিকে অসুস্থবোধ করলে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য একজন চিকিৎসককে দুদক কার্যালয়ে ডাকা হয়। তবে ‘নার্ভাস বোধ’ করা ছাড়া তাঁর আর কোনো সমস্যা ছিলো না বলে জানা গেছে।

দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য জানান, স্বাভাবিকভাবেই বুধবার সকাল থেকে বেসিক ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যানকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তবে দুপুরের পর তিনি কিছুটা নার্ভাস ফিল করছিলেন বলে জানান। এ সময় দুদকের পক্ষ থেকে চিকিৎসক ডেকে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়।

এর আগে গত সোমবার প্রথম দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় আবদুল হাই বাচ্চুকে। ওইদিন তিনি জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, ব্যাংকের হাজার কোটি টাকার ঋণ জালিয়াতির বিষয়ে দুদককে যতটুকু সম্ভব তিনি বলেছিলেন।

আবদুল হাই বাচ্চুর নেতৃত্বাধীন পর্ষদ ২০১২ সালের এপ্রিল থেকে পরের বছরের মার্চ মাস পর্যন্ত নজিরবিহীন অনিয়মের মাধ্যমে ৩ হাজার ৪৯৩ কোটি ৪৩ লাখ টাকা ঋণের নামে বিভিন্নজনকে দিয়ে দেয়। বাংলাদেশ ব্যাংক তখন তদন্ত করে বলেছিল, ‘৪০টি দেশীয় তফসিলি ব্যাংকের কোনোটির ক্ষেত্রেই পর্ষদ কর্তৃক এ ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের প্রক্রিয়া পরিলক্ষিত হয় না। এই ঋণ আদায়ের সম্ভাবনাও কম। ’

তবে বেসিক ব্যাংকের এই ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় অনুসন্ধান শুরু করলেও জিজ্ঞাসাবাদে বিলম্ব করে দুদক। একপর্যায়ে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের কয়েক দফা পর্যবেক্ষণের পর জিজ্ঞাসাবাদের উদ্যোগ নেওয়া হয়। এরই অংশ হিসেবে বাচ্চু এবং তাঁর নেতৃত্বাধীন পরিচালনা পর্ষদের ১০ জনকে নোটিশ পাঠায় দুদক।


মন্তব্য