kalerkantho


আজ জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০২:১৮



আজ জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর-উত্তমের ৮২তম জন্মবার্ষিকী আজ শুক্রবার। ১৯৩৬ সালের ১৯ জানুয়ারি বগুড়ার গাবতলীর বাগবাড়ীতে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা মনসুর রহমান পেশায় ছিলেন একজন রসায়নবিদ। বগুড়া ও কলকাতায় শৈশব ও কৈশোর অতিবাহিত করার পর জিয়াউর রহমান বাবার কর্মস্থল করাচিতে চলে যান। শিক্ষাজীবন শেষে ১৯৫৫ সালে তিনি পাকিস্তান মিলিটারি একাডেমিতে কর্মকর্তা হিসেবে কমিশন লাভ করেন।

একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে সেক্টর কমান্ডার হিসেবে শত্রু বাহিনীর মোকাবেলা করা এই বীর মুক্তিযোদ্ধা যুদ্ধ শেষে পেশাদার সৈনিকজীবনে ফিরে যান। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তৎকালীন রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নিহত হওয়ার মতো ঘৃণ্য ঘটনার পর নানা রাজনৈতিক পটপরিবর্তন ও ঘটনাপ্রবাহের পরিপ্রেক্ষিতে সিপাহি-জনতার ঐক্যবদ্ধ অভ্যুত্থান ঘটে। দেশের সেই চরম ক্রান্তিকালে সিপাহি-জনতার মিলিত প্রয়াসে জিয়াউর রহমান নেতৃত্বের হাল ধরেন। রাষ্ট্রক্ষমতায় আসীন হয়ে তিনি দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র, বাক-ব্যক্তি স্বাধীনতা, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নিশ্চিত করেন। তাঁর রাজনৈতিকবিরোধীরাও তাঁর সততা নিয়ে কখনো কোনো প্রশ্ন উত্থাপন করতে পারেনি।

জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকা অবস্থায় তিন দশক আগে প্রতিষ্ঠা করেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। তাঁর গড়া সেই রাজনৈতিক দল তাঁর সহধর্মিণী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে আজ দেশের বৃহৎ একটি রাজনৈতিক দল হিসেবে স্বীকৃত।

জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এক বাণীতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল বৃহস্পতিবার বলেন, ‘শহীদ জিয়া ছিলেন আধিপত্যবাদ ও সম্প্রসারণবাদের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে এক আপসহীন দেশপ্রেমিক রাষ্ট্রনায়ক। সব ধরনের বৈদেশিক চাপ ও অশুভ প্রভাব বিস্তারের অপচেষ্টাকে অগ্রাহ্য করে স্বাধীন পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ শহীদ জিয়ার এক অবিস্মরণীয় অবদান। দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রকারীরা নিজেদের নীলনকশা বাস্তবায়নের পথে কাঁটা ভেবে তাঁকে নির্মমভাবে হত্যা করে।’

সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি :  জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। এসবের মধ্যে রয়েছে জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ, আলোচনাসভা, শোভাযাত্রা, রচনা প্রতিযোগিতা, দুস্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ, ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প ও আলোকচিত্র প্রদর্শনী। গতকাল থেকে এ কর্মসূচি শুরু হয়েছে।

আজ ভোরে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও সারা দেশে সব ইউনিট কার্যালয়ে দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। সকাল ১০টায় রাজধানীর শেরেবাংলানগরে জিয়াউর রহমানের কবরে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হবে। বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন এ উপলক্ষে পোস্টার বের করেছে। জাতীয় দৈনিকে বিশেষ ক্রোড়পত্রও প্রকাশ করা হয়েছে।

দিনটি উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধা দল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিক দল, মহিলা দল, ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন, ছাত্রদলসহ বিভিন্ন অঙ্গসংগঠন আলোচনাসভা, শ্রমিক শোভাযাত্রা, শীতবস্ত্র বিতরণ, রচনা প্রতিযোগিতা, আলোকচিত্র প্রদর্শনীসহ নানা কর্মসূচি পালন করবে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির পাশাপাশি জেলা-উপজেলা পর্যায়েও দিনটি মর্যাদার সঙ্গে পালনের জন্য সব ইউনিটকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য