kalerkantho


আনন্দ ছাড়া শিক্ষাগ্রহণ হয় না: দুদক চেয়ারম্যান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৬:১৫



আনন্দ ছাড়া শিক্ষাগ্রহণ হয় না: দুদক চেয়ারম্যান

'আমি স্বপ্ন দেখি আমাদের শিশুরা খেলতে খেলতে আনন্দচিত্তে শিক্ষা গ্রহণ করবে । কারণ ভয় দিয়ে কখনো   শিক্ষা ও কাজ আদায় করা যায় না। আনন্দ ছাড়া যেমন কাজ করা যায় না, তেমনি শিক্ষাও গ্রহণ করা যায় না।'

আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয় মিলনায়তনে দুদক ও যুক্তরাষ্ট্রে  বাংলাদেশিদের সংগঠন সিএলপি-ইউএসএ, গুণীজন ট্রাস্ট এবং কাইট বাংলাদেশ'র সঙ্গে সমঝোতা স্মারকে স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। 

ইকবাল মাহমুদ বলেন, 'মূল্যবোধ ব্যতীত টেকসই উন্নয়নও সম্ভব নয়। আমরা যদি শিশুদের মাঝে নৈতিক মূল্যবোধ গ্রথিত করতে পারি, তাহলে হয়তো আমরা পাঁচ থেকে ১০ বছর পর আরো বেশি সুনাগরিক পাব।' তিনি বলেন, 'আমাদের দেশে অনেকের দক্ষতা রয়েছে কিন্তু মূল্যবোধ নেই। মূল্যবোধহীন  দক্ষতা অনাবশ্যক। নৈতিক মূল্যবোধই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।' দেশের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে তিনি বলেন, 'সার্টিফিকেট বা জিপিএ ৫ দিয়ে যে কিছু হয় না- এটা স্বীকার করতেই হবে, বরং যারা দক্ষতা ও মূল্যবোধে চর্চা করতে পেরেছে তারাই সাফল্য পাচ্ছে।' 

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, 'কাইট বাংলাদেশ, গুণীজন ট্রাস্ট, সিএলপি-ইউএসএ'র মতো সামাজিক সংগঠনগলোই সমাজ তথা দেশের চালিকা শক্তি। তাই কমিশন এসব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে উত্তম চর্চার বিকাশে একত্রে কাজ করার অভিপ্রায়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে।' তিনি বলেন, 'আমরা সম্মিলিতভাবে কাজ করতে পারলে অভিষ্ঠ লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবো। শহর ও গ্রামাঞ্চলের শিক্ষার গুণগত মান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, গ্রামাঞ্চলের শিক্ষার বিষয়ে আমাদেরকে অধিকতর গুরুত্ব দিতে হবে।

আরো পড়ুন দুদকের সঙ্গে তিন সামাজিক সংগঠনের সমঝোতা স্বাক্ষর

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ইকবাল মাহমুদ বলেন, 'শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেসব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গণমাধ্যমে ঘুষ-দুর্নীতির সংবাদ এসেছে, এগুলোর বিষয়ে ইতিমধ্যে  অনুসন্ধান শুরু হয়েছে। শুধু শিক্ষা মন্ত্রণালয় নয়, যে কোনো মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি হলে দুদক অবশ্যই অনুসন্ধান বা তদন্ত করবে।'

আরো পড়ুন ফরিদপুরে কোচিং ও গাইড বইবিরোধী মানববন্ধন 

সম্পতি ব্যাংকিং খাত নিয়ে সিপিডি'র বক্তব্যের বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যানের প্রতিক্রিয়া সাংবাদিকরা জানতে চাইলে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, 'সিপিডির বক্তব্যের বিষয়ে আমার কোনো মন্তব্য নেই। তবে আমাদের কাছে যেসব তথ্য-উপাত্ত রয়েছে সেগুলো বলছে, ২০১৭ সালে ব্যাংকিং খাতে সুশাসন শুরু হয়েছে। ২০১৭ সালেই বেসিক ব্যাংক থেকে যেসব   হিসাবের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ হয়েছে, সেসব হিসাবে বেশকিছু নগদ অর্থ জমা হয়েছে। বেশকিছু ঋণ পুনঃতফসিল হয়েছে। ২০১৭ সালে ঋণ জালিয়াতির যেসব  ঘটনায় মামলা হয়েছে সেসব অভিযোগ পূর্ববর্তী বছরসমূহের। তাছাড়া ব্যাংকগুলোর পরিচালনা পর্ষদও পুনর্গঠন করা হয়েছে । কমিশনের কাছে যে তথ্য রয়েছে তাতে মনে হচ্ছে, পরিচালনা পর্ষদগুলো সঠিকভাবেই কাজ করছে।

গুণীজন ট্রাস্টের চেয়ারম্যান খোন্দকার ইব্রাহীম খালেদ বলেন, দুর্নীতি দমন কমিশনের বর্তমান কর্মতৎপরতা আমাদের মনে আশা জাগিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত বাংলাদেশিদের সংগঠন সিএলপি-ইউএসএ এবং গুণীজন ট্রাস্টের পক্ষে কাইট বাংলাদেশ'র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের পক্ষে মহাপরিচালক (প্রতিরোধ) মো. জাফর ইকবাল এনডিসি সমঝোতা স্মারকে স্ব-স্ব পক্ষে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন দুদক কমিশনার এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, কাইট বাংলাদেশ'র চেয়ারম্যান ড. অনন্য রায়হান, সিএলপি-ইউএসএ'র সভাপতি ড. মোহাম্মদ ফারুক প্রমুখ।


মন্তব্য