kalerkantho


সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সব নাগরিকের ইলেকট্রনিক হেলথ রেকর্ড তৈরি হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক    

১২ জুন, ২০১৮ ১৫:৩৯



সব নাগরিকের ইলেকট্রনিক হেলথ রেকর্ড তৈরি হচ্ছে

দেশের সব নাগরিকের ইলেকট্রনিক হেলথ রেকর্ড তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি জানান, স্বাস্থ্য উপাত্তভিত্তিক লাইফ টাইম শেয়ার পোর্টেবল সিটিজেনস ইলেকট্রনিক হেলথ কার্ড তৈরির কার্যক্রম গতিশীল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে এসব তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে এ সংক্রান্ত প্রশ্নটি উত্থাপন করেন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য সালমা ইসলাম। জবাবে মন্ত্রী আরো জানান, সরকার জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) ভিত্তিতে নাগরিকদের হেলথ কার্ড রেকর্ড ডাটাবেজ  তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। একজন ব্যক্তির সারা জীবনের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য এখানে সংরক্ষিত থাকবে। এতে কেন্দ্রীয়ভাবে দেশের প্রত্যেক নাগরিকের স্বাস্থ্যের অবস্থা জানা সম্ভব হবে। এটি অনুসরণ করে চিকিৎসকরা পরামর্শ দিতে পারবেন। এতে একজন নাগরিকের চিকিৎসা ব্যয় কমে আসবে।

সরকারি দলের সদস্য মামুন রশীদ কিরণের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ নাসিম জানান, বর্তমানে চিকিৎসা বাবদ সরকারিভাবে প্রত্যেক রোগীর জন্য বছরে ব্যয় ৭৬ হাজার ৩৭৪ টাকা। খাবার বাবদ একজন রোগীর প্রতিদিনের ব্যয় ১২৫ টাকা। সরকার প্রতিবছরই মাথাপিছু চিকিৎসা ব্যয় বৃদ্ধি করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

একই দলের দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, মেডিক্যাল ও ডেন্টাল কাউন্সিলের (বিএমডিসি) তথ্য অনুযায়ী, দেশের এমবিবিএস রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের সংখ্যা ৮৭ হাজার ৩২১ জন ও বিডিএস রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসক আট হাজার ৫১৫ জন। এরমধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে বিষেশজ্ঞ ২৮ হাজার ৭৪১ জন ডাক্তার রয়েছেন।

এ ছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস অ্যান্ড সার্জনসহ অন্যান্য অনুমোদিত মেডিক্যাল কলেজে প্রতিবছর দুই  হাজার ৮৪৬ জন চিকিৎসক বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ কোর্সে ভর্তি হচ্ছেন।

 


মন্তব্য