kalerkantho


আইজিপির সাথে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন প্রধানের সাক্ষাত

বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ, পুলিশের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ জুন, ২০১৮ ২০:০৬



বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ, পুলিশের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা

জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ পুলিশের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন। জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল জ্যঁ পিয়েরে ল্যাক্রুয়া (Jean Pierre Lacroix) এর নেতৃত্বে বাংলাদেশ সফররত ৫ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল গতকাল রবিবার বিকেলে পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী সাথে সৌজন্য সাক্ষাতকালে এই প্রশংসা করেন।

সাক্ষাতকালে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ পুলিশের কার্যক্রম সংক্ষিপ্তভাবে তুলে ধরা হয়। প্রতিনিধিদলে জাতিসংঘের পুলিশ অ্যাডভাইজর লুইস ক্যারিলহো, জাতিসংঘে বাংলাদেশ মিশনের ডিফেন্স অ্যাডভাইজর বিগ্রেডিয়ার জেনারেল খান ফিরোজ আহমেদ, আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেলের স্টাফ অফিসার এ্যালিস কিলম্যান ছিলেন। তাছাড়া পুলিশের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (প্রশাসন ও অপারেশন্স) মোখলেসুর রহমান, অতিরিক্ত আইজিপি মইনুর রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত আইজিপি মহসিন হোসেন, এডিশনাল ডিআইজি (পার্সোনাল ম্যানেজমেন্ট) হাবিবুর রহমান এবং সেনাবাহিনী ও পুলিশ বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল বাংলাদেশের পুলিশ সদস্যদের পেশাদারিত্ব ও দক্ষতার প্রশংসা করে বলেন, সংঘাতপূর্ণ ও যুদ্ধ বিধ্বস্ত বিভিন্ন দেশে তারা শান্তি রক্ষায় অনন্য অবদান রাখছেন। তিনি বলেন, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বাংলাদেশ পুলিশকে আরও দক্ষতা অর্জন করতে হবে। বিশেষ করে ফরাসী ভাষায় দক্ষতা অর্জনের ওপর জোর দেন তিনি ।

বাংলাদেশের পুলিশ প্রধান ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী, বলেছেন, জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশ অন্যতম শীর্ষ পুলিশ প্রেরণকারী দেশ হিসেবে বিশ্ব শান্তিরক্ষায় দক্ষতা ও যোগ্যতা  প্রমাণে সমর্থ হয়েছে। তিনি শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে বাংলাদেশ পুলিশের অংশগ্রহণ আরও বাড়ানোর জন্য আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেলের প্রতি অনুরোধ জানান। আইজিপি নারী পুলিশের ইউনিট বাড়ানো এবং জাতিসংঘ সদর দপ্তরে বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর সুপারিশ করেন।

 



মন্তব্য