kalerkantho


মুক্তাগাছায় টোল আদায়

যুবলীগের দুই গ্রুপে দ্বন্দ্ব ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে হামলায় আহত ১

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ   

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



রাস্তায় পরিবহন টোল আদায়কে কেন্দ্র করে ময়মনসিংহের মুক্তাগাছায় যুবলীগের দুই গ্রুপে পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর ও যানবাহনে অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটে। ঘটনার সময় সাইদুল ইসলাম নামে পৌর যুবলীগের এক সদস্য আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শহরে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও আওয়ামী লীগদলীয় সূত্রে জানা যায়, মুক্তাগাছা পৌর বাস টার্মিনালের দখল, ইজারা ও টোল আদায়সহ নানা বিষয় নিয়ে উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহবুবুল হক মনির সঙ্গে উপজেলা যুবলীগের একাংশ ও পৌর যুবলীগের বিরোধ চলে আসছিল।

গতকাল রবিবার সকাল ১১টার দিকে পৌর যুবলীগের সদস্য সাইদুল ইসলাম শহরের বড়হিস্যা বাজার এলাকায় সিএনসি অটোরিকশা থেকে পৌর টোল আদায় করতে যান। অভিযোগ উঠেছে এ সময় মাহবুবুল হক মনি তাঁর লোকজন নিয়ে সাইদুলের ওপর হামলা চালায়। পরে সাইদুল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে মনির প্রতিপক্ষ। তারা মনিকে খুঁজতে শহরের বড়হিস্যা বাজার এলাকায় তাঁর ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বিহন মটর্সে যায়। তাঁকে সেখানে না পেয়ে দোকানে ব্যাপক ভাঙচুর করে। এ সময় শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভান।

মনি বলেন, ‘বিনা কারণে শহর যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর, যুগ্ম আহ্বায়ক রবিন সরকার প্রমুখের নেতৃত্বে আমার বাসা এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ভাঙচুর করা হয়েছে।’ তবে রবিন সরকার দাবি করেন, এ ঘটনার সঙ্গে তিনি জড়িত নন।

মুক্তাগাছা থানার ওসি আলী আহমেদ মোল্লা বলেন, হামলার ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে শহরে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

 



মন্তব্য