kalerkantho


চকরিয়ায় তুচ্ছ ঘটনায় দুই গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষ

নারী শিশুসহ আহত ১০

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



তুচ্ছ ঘটনার জেরে কক্সবাজারের চকরিয়ায় গতকাল রবিবার দুই পক্ষের দফায় দফায় হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। হামলা হাসপাতাল পর্যন্ত গড়ালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে পুলিশকে যথেষ্ট বেগ পেতে হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষে শিক্ষার্থী, নারী, সাবেক পৌর কাউন্সিলরসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে দুই নারীসহ সাতজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল দুপুর ২টা থেকে সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত উভয় পক্ষে অন্তত পাঁচবার সংঘর্ষে পৌরশহর চিরিঙ্গাসহ পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। প্রথম সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের ঘনশ্যামবাজার বটতলা এলাকায়। এরপর থেমে থেমে বিভিন্ন জায়গায় সংঘর্ষ চলে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিতে বিপুলসংখ্যক পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। এর পরও হাসপাতালে গিয়ে এক পক্ষ আরেক পক্ষের ওপর হামলে পড়ে।

আহতরা হলো লক্ষ্যারচর সিকদারপাড়ার জামাল উদ্দিনের মেয়ে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী শিমু আক্তার (১২), মৃত আবু তালেবের স্ত্রী আশেয়া বেগম (৫৫), পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর নূর হোসেন (৪০), সাইফুর রহমানের স্ত্রী জনুয়ারা বেগম, আহমদ কবিরের ছেলে নুরুল কবির (৪৬) ও তাঁর ছেলে নূর নবী (২০), আহমদ কবিরের ছেলে নুরুল কাদের (৪০) ও মুবিনুল হক (২০)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পৌরসভার এক নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর নূর হোসেন ও একই এলাকার মৃত হাকুম আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর আলম ওরফে দুদু মেম্বারের লোকজনের মধ্যে দফায় দফায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নূর হোসেনের পক্ষের এক ব্যক্তির থানায় করা একটি অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনা তদন্ত করতে গেলে সেখানে প্রতিপক্ষের হয়ে তদন্তস্থলে যান দুদু মেম্বার। এ সময় দুদু মেম্বারকে ‘দালালি না করতে’ বলেন নূর হোসেন। এই কথার জেরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সূত্রপাত এবং তা বিভিন্ন স্থানে দফায় দফায় সংঘটিত হয়। স্থানীয় লোকজন জানায়, দুদু মেম্বারের অন্তত ২০ জনের একটি দল ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে নূর হোসেন ও তাঁর লোকজনের ওপর হামলা চালায়। তারা নূর হোসেনের বসতবাড়িসহ বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে তাণ্ডব ও লুটপাট চালিয়ে ২০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি করে।

চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে পুলিশ। সংঘর্ষের সময় ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকা থেকে। ক্ষতিগ্রস্তদের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে মামলা নেওয়া হচ্ছে।’


মন্তব্য