kalerkantho


বন্ড সুবিধা নিয়ে ১২০ কোটি টাকার রাজস্ব ফাঁকি, গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০



বন্ড সুবিধা নিয়ে ১২০ কোটি টাকা রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে তুরাগের মেসার্স মাসটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে এ মামলা করে। পরে গতকাল রাতেই ওই প্রতিষ্ঠানের দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন মাসটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান সৈয়দ আবিদুল ইসলাম ও পরিচালক খন্দকার সুরাত আলী। তাঁরা ছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মিজানুর রহমান, পরিচালক এম হক বাবুসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরো পাঁচজনকে ওই মামলায় আসামি করা হয়েছে।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর সূত্র জানায়, গত ২০ আগস্ট মধ্যরাতে চট্টগ্রাম থেকে আসা একটি কাভার্ড ভ্যান (ঢাকা মেট্রো-ট-১৪-২৮২৩) রাজধানীর ইসলামপুরে পণ্য খালাসের প্রস্তুতি নিচ্ছিল। এ সময় শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের একটি দল চালকের কাছে চালান দেখতে চায়। এ সময় গাড়ির চালক পণ্য আমদানির বিল অব এন্ট্রি, সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট তানিয়া কার্গো সার্ভিসের ডেলিভারি চালান ও ট্রান্সপোর্ট এজেন্সির চালান দেখান। এসব কাগজপত্র যাচাই-বাছাই এবং চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করে গোয়েন্দা দল নিশ্চিত হয়, কাস্টমস বন্ডেড ওয়্যারহাউস সুবিধার (শুল্কমুক্ত) আওতায় পলি সিনথেটিক ওভেন ফ্যাব্রিকস কাঁচামাল হিসেবে আমদানি করে খোলাবাজারে বিক্রি করছে মাসটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ। গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সহিদুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আজ (মঙ্গলবার) মামলা করা হয়। রাতে চেয়ারম্যান ও একজন পরিচালককে আটক করা হয়েছে। বন্ড সুবিধার অপব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থানের ধারাবাহিকতায় এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’


মন্তব্য