kalerkantho


মাদকবিরোধী লড়াইয়ে উদ্বেগ

মানবাধিকারের বাধ্যবাধকতা মানার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চলমান মাদকবিরোধী অভিযান নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল বুধবার রাতে ওয়াশিংটনে যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র হিদার নোয়ার্ট এক বিবৃতিতে ওই উদ্বেগের কথা জানান। একই সঙ্গে তিনি বাংলাদেশকে বিচারবহির্ভূত প্রতিটি হত্যার পূর্ণ তদন্ত এবং সরকারকে মানবাধিকারের বাধ্যবাধকতা মেনে চলার আহ্বান জানান।

‘বাংলাদেশে মাদকবিরোধী অভিযান নিয়ে উদ্বেগ’ শীর্ষক বিবৃতিতে হিদার নোয়ার্ট বলেন, ‘গত মে মাসের প্রথম দিক থেকে বাংলাদেশজুড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে অন্তত ১৪৭ জন নিহত এবং ২১ হাজার ব্যক্তি গ্রেপ্তারের খবরে আমরা উদ্বেগ জানাই। আমরা বাংলাদেশকে বিচারবহির্ভূত সব হত্যার স্বচ্ছ ও পূর্ণ তদন্তের আহ্বান জানাই। ’

হিদার নোয়ার্ট বলেন, অবৈধ মাদক সারা বিশ্বের জন্যই সমস্যা। বাংলাদেশকে মানবাধিকারের প্রতি সম্মান প্রদর্শন এবং আন্তর্জাতিক মান ও বাংলাদেশের নিজের সংবিধান অনুসরণ করে আইন প্রয়োগ করা উচিত। সন্দেহভাজন অপরাধীরাও নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ এবং যথাযথ প্রক্রিয়ায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ার অধিকার রাখে। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা দেখতে চাই যে বাংলাদেশ সরকার মানবাধিকারের বাধ্যবাধকতাগুলো পুরোপুরি মেনে চলছে।’

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তর থেকে গত রাতে আনুষ্ঠানিক এ বিবৃতির আগে ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ও পররাষ্ট্রসচিব মো. শহিদুল হকের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে মাদকবিরোধী অভিযানে সন্দেহভাজন মাদক কারবারিদের নিহত হওয়ার খবরে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছেন। এরই মধ্যে জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক দপ্তর, মাদক নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক দপ্তর এবং ঢাকায় নরওয়ে ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলোর দূতাবাসগুলো মাদকবিরোধী অভিযানের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়েছে। তাদের বেশির ভাগই অভিযানের সময় সন্দেহভাজনদের নিহত হওয়ার খবরে উদ্বেগ জানিয়েছে।

 


মন্তব্য