kalerkantho


ঈদ ছুটিতে ঘুরে বেড়ানো

রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত

শেখ শাফায়াত হোসেন   

১৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্রগুলো প্রস্তুত

ঈদে বন্ধুবান্ধব বা পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘুরতে বের হয় অনেকে। ঈদকেন্দ্রিক এ ঘোরাঘুরিকে লক্ষ্য রেখে রাজধানীর বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে রাখা হয়েছে বিশেষ আয়োজন। তবে এত সব আয়োজনের পরও বিনোদনকেন্দ্রগুলোর ব্যবসা নির্ভর করছে আবহাওয়ার ওপর। ঈদের ছুটির মধ্যে টানা বৃষ্টি হলে মাটি হয়ে যেতে পারে উন্মুক্ত বিনোদনকেন্দ্রগুলোর ব্যবসা। তবে ঘরোয়া বিনোদনকেন্দ্রগুলো এ ক্ষেত্রে কিছুটা ভালো অবস্থানে রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, আগামী ১৬ জুন (ঈদের দিন) ঢাকাসহ সারা দেশে বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ। এর পরও গত কয়েক দিনের বৃষ্টিপাতে আশস্ত হতে পারছে না নগরবাসী। তারা বলছে, ঈদের দিন বা ঈদের ছুটির দিনগুলোতে বৃষ্টি হলে পার্ক বা উন্মুক্ত বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে ঘোরাঘুরি মুশকিল হয়ে পড়বে। তবে বসুন্ধরা শপিং মলের স্টার সিনেপ্লেক্সের মতো বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে এ ধরনের সমস্যা কিছুটা হলেও এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব।

জানা গেছে, এবারের ঈদে স্টার সিনেপ্লেক্সে বিদেশি চারটি মুভি এবং একটি বাংলা মুভি প্রদর্শিত হবে। মুভিগুলো হলো স্বপ্নজাল, ডেডপুল-২, রেনেগাডস, সলো : এ স্টার ওয়ার্স স্টোরি ও অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ার্স।

ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত দিয়াবাড়ী এখন ভ্রমণপিপাসুদের কাছে প্রিয় একটি নাম। তা ছাড়া চিড়িয়াখানা, জাতীয় জাদুঘর, শিশু পার্ক, শিশু মেলা, ফ্যান্টাসি কিংডম, নন্দন পার্ক, বুড়িগঙ্গা ইকো পার্ক, যমুনা ফিউচার পার্ক, ওয়ান্ডারল্যান্ড পার্ক, লালবাগ কেল্লা, আহসান মঞ্জিল, হাতিরঝিল ও ৩০০ ফুটসংলগ্ন পূর্বাচল বাজার এখন প্রধান বিনোদনকেন্দ্র ঢাকাবাসীর কাছে।

জানা গেছে, ঈদের সময় ঢাকা চিড়িয়াখানায় দর্শনার্থীর সংখ্যা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। প্রতিদিনের মতোই সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকবে চিড়িয়াখানা। প্রবেশমূল্য ৩০ টাকা। এবারও ঈদের দিন খোলা থাকছে না জাতীয় জাদুঘর ও এর আওতাধীন স্বাধীনতা জাদুঘর। ঈদের পরদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে এগুলো। এ দিন শিক্ষার্থী, শিশু-কিশোর, প্রতিবন্ধী ও সিনিয়র সিটিজেনদের জন্য কোনো টিকিট লাগবে না। গ্যালারি প্রদর্শন ছাড়া জাদুঘরের বিনা টিকিটে শিশুতোষ চলচ্চিত্র প্রদর্শন করা হবে।

শাহবাগে অবস্থিত কেন্দ্রীয় শিশু পার্কটিকে ঈদ উপলক্ষে সাজানো হয়েছে নতুন করে। রং নষ্ট হয়ে যাওয়া রাইডগুলোতে লাগানো হয়েছে নতুন রং। রাইডগুলোর ছোটখাটো যান্ত্রিক ত্রুটিগুলো মেরামত করা হয়েছে। এবারও আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করেছে শিশু পার্ক কর্তৃপক্ষ। ঈদের প্রথম চার দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে পার্ক। প্রবেশমূল্য ১৫ টাকা। তবে ঈদে সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা বিনা টিকিটে প্রবেশ ও রাইডগুলো চড়ার সুযোগ পাবে।

শ্যামলীর শিশু মেলা আশপাশ এলাকার শিশু-কিশোরদের প্রধান বিনোদনকেন্দ্র। এখানে আছে ৪০টির মতো রাইড। পরিবারের সবার চড়ার মতো আছে ১২টি রাইড। শিশু মেলা কর্তৃপক্ষ জানায়, ঈদের প্রথম সাত দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এটি খোলা থাকবে। প্রবেশমূল্য জনপ্রতি ৫০ টাকা।

বিশ্বমানের বিনোদনসেবা, চমৎকার ল্যান্ডস্কেপিং ও উত্তেজনাকর সব রাইডস নিয়ে তৈরি ফ্যান্টাসি কিংডম, যা এরই মধ্যে বিনোদনপিপাসু ছোট-বড় সবার কাছে বিনোদনের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। ঢাকার অদূরে আশুলিয়ায় গড়ে ওঠা এই থিম পার্কটি ঈদের প্রথম সাত দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। সাঁতার কাটা যাবে ওয়াটার কিংডমে।

সাভারের নবীনগরের নন্দন পার্কে নানা রকম রাইড এবং ওয়াটার ওয়ার্ল্ডের পাশাপাশি আছে খুদে চিড়িয়াখানাও। নন্দন পার্কের হেড অব মার্কেটিং মেজবাউদ্দিন প্রিন্স কালের কণ্ঠকে জানান, ঈদের পরদিন থেকে চার দিন পর্যন্ত নানা আয়োজন রয়েছে। ঈদ উপলক্ষে মডার্ন ডান্স, ডিজে এবং ফায়ার ডান্সের ব্যবস্থা থাকছে। পার্কটি খোলা থাকবে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত। ঈদ উপহার থাকবে সবার জন্য।

ইট-পাথরের এই ব্যস্ত শহরে ক্লান্তিকর নাগরিক জীবনে রাজধানীর হাতিরঝিল হয়ে উঠেছে মনোরম এক বিনোদনকেন্দ্র। পুরো হাতিরঝিল ঘুরে দেখার জন্য রয়েছে চক্রাকার বাস সার্ভিসও। তা ছাড়া লেকে ঘুরে বেড়ানোর জন্য রয়েছে ওয়াটার বাস। আশপাশে বেশ কিছু রেস্টুরেন্টও রয়েছে খাওয়া-দাওয়ার জন্য।

লালবাগের কেল্লা পুরান ঢাকায় অবস্থিত। এটি দেশের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটনস্থল। খোলা থাকবে সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। টিকিটের মূল্য ৩০ টাকা।

শহরের কোলাহল ছেড়ে রাজধানীর উপকণ্ঠ শ্যামপুরে প্রায় সাত একর জায়গার ওপর গড়ে উঠেছে বুড়িগঙ্গা ইকো পার্ক। পুরান ঢাকার ইসলামপুরে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে মোগল আমলের ঐতিহ্য নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে আহসান মঞ্জিল। খোলা থাকবে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত।



মন্তব্য