kalerkantho


গাজীপুর সিটি নির্বাচন

দুই মেয়র প্রার্থীর ঈদের শুভেচ্ছা

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

১৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম এবং বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার নগরবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। যেসব শ্রমিক ভোটার ঈদ উদ্‌যাপনের জন্য গ্রামের বাড়ি যাচ্ছে, তাদের আগামী ২৩ জুনের মধ্যে গাজীপুরে ফিরে আসার জন্যও অনুরোধ জানিয়েছেন তাঁরা।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম গতকাল বৃহস্পতিবার নগরবাসীকে ঈদের আগাম শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, ‘পবিত্র ঈদুল ফিতরে আসুন সকল ভেদাভেদ ভুলে আমরা একসঙ্গে এগিয়ে যাই। আওয়ামী লীগ এবং জননেত্রী শেখ হাসিনা ও আমার পক্ষ থেকে আপনাদের জানাই অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা। আসুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গাজীপুরকে একটি সুন্দর, সুখী এবং আধুনিক মহানগর গড়ে তুলতে কাজ করি।’ মহানগরীর ৩০ নম্বর ওয়ার্ডে নীলের পাড়া স্কুল মাঠে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মো. শফিকুল আলমের সভাপতিত্বে আয়োজিত ইফতার ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জাহাঙ্গীর আলম। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সুপ্রিম কোর্টের অ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম বাবুল, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এস এম মোকসেদ আলম, আইনবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট খালেদুর রহমান প্রমুখ।

ইফতারপূর্ব বক্তব্যে জাহাঙ্গীর আলম আবেগজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘কানাইয়া আমার জন্মস্থান। আমি গাজীপুরের সর্বস্তরের মানুষের সেবা করতে চাই। যেন নিজেদের ছেলে হিসেবে কানাইয়া তথা ৩০ নম্বর ওয়ার্ডবাসী গর্ব করতে পারে।’ তিনি আরো বলেন, ‘নির্বাচনের আর মাত্র বাকি ১০ দিন। বঙ্গবন্ধুর নৌকার জন্য, জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য ১০ দিন চেয়ে নিলাম। আপনারা ঘরে ঘরে ভোট চাইতে থাকুন। ইনশাআল্লাহ আগামী ২৬ জুন গাজীপুরবাসী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে নৌকার বিজয় উপহার দিতে প্রস্তুত।’

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার টঙ্গীর বড় দেওড়ায় নিজের প্রতিষ্ঠিত আহসান উল্লাহ সরকার ইসলামিক ফাউন্ডেশন এতিমখানায় সময় কাটান গতকাল সারা দিন। সেখানেই তিনি এলাকাবাসী ও দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের অগ্রিম শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। তিনি বলেন, ‘যাঁরা নাড়ির টানে গ্রামের বাড়ি যাচ্ছেন, তাঁদের নিরাপদ যাতায়াত কামনা করছি। ভোটের আগেই আপনারা ফিরে আসবেন এটা আমার অনুরোধ। আপনাদের একটি ভোটের অনেক মূল্য। আপনাদের একটি ভোট বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তির আন্দোলন বেগবান করবে। এই সরকারের জুলম, নির্যাতন ও লুটপাটের প্রতিবাদ হবে।’

হাসান উদ্দিন সরকার আরো বলেন, ‘নির্বাচিত হলে গাজীপুরে সকলের নিরাপদ বসবাস ও কর্মস্থলে যাতায়াত নির্বিঘ্ন করব। কে বাহিরের আর কে স্থানীয় আমি এই দৃষ্টিভঙ্গি কখনোই পোষণ করিনি। আমি আঞ্চলিকতায় বিশ্বাস করি না। আমি মনে করি, আমরা সকলেই স্থানীয় ও একটি নির্দিষ্ট স্বাধীন-সার্বভৌম ভূখণ্ডের বাসিন্দা। আমাদের মধ্যে কোনো ভেদাভেদ নেই।’

হাসান সরকার বলেন, ‘সরকারি দল শুরু থেকেই আচরণবিধি লঙ্ঘন করে চললেও আমরা এ পর্যন্ত যথাযথভাবে আচরণবিধি মেনে চলছি। মন্ত্রী-এমপিরাও আচরণবিধির কোনো তোয়াক্কা করছেন না। আগামী ১৮ জুন থেকে আমাদের ২০ দলীয় জোট নেতারা সর্বাত্মকভাবে প্রচারণায় নামবেন।’



মন্তব্য