kalerkantho


নন-এমপিও শিক্ষকদের প্রতীকী অনশন পালন

আজ অবস্থান কর্মসূচি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



এমপিওভুক্তির দাবিতে প্রতীকী অনশন পালন করেছেন নন-এমপিও শিক্ষকরা। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বৃষ্টির মধ্যেও দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা শিক্ষক-কর্মচারীরা খোলা আকাশের নিচে অনশন পালন করেন। আজ রবিবার তাঁরা অবস্থান কর্মসূচি পালন করবেন। আজকের মধ্যে দাবি আদায়ে সুনির্দিষ্ট কোনো ঘোষণা না এলে কাল সোমবার থেকে আমরণ অনশনের ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষকরা।

নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারী ফেডারেশনের ডাকে গত ১০ জুন থেকে লাগাতার আন্দোলন চলছে। সংগঠনের নেতারা বলেছেন, মন্ত্রণালয় নতুন নীতিমালার ভিত্তিতে এমপিওভুক্তির কথা বলছে। কিন্তু তাঁদের দাবি, পুরনো নীতিমালা অনুযায়ী স্বীকৃতি পাওয়া সব বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করতে হবে।

সংগঠনের সভাপতি অধ্যক্ষ গোলাম মাহমুদুন্নবী ডলার বলেন, ‘আমরা প্রতীকী অনশন পালন করেছি। একই সঙ্গে সব নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদানও বন্ধ রয়েছে। রবিবারের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত এমপিওভুক্তির স্পষ্ট ঘোষণা দিতে হবে। অন্যথায় সোমবার থেকে আমরণ অনশন যেতে আমরা বাধ্য হব।’

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ বিনয় ভূষণ রায় বলেন, বেশির ভাগ নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা ১৫ থেকে ২০ বছর বিনা বেতনে চাকরি করছেন। অনেকের আর চাকরি আছে মাত্র পাঁচ থেকে ১০ বছর। এ কারণে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে আর অপেক্ষায় না রেখে বর্তমান সরকারের মেয়াদে এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। এত বছর পর কোনোক্রমে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির আংশিক সমাধান সমীচীন হবে না। স্বীকৃত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে কিছুসংখ্যক এমপিওভুক্ত করার উদ্যোগ নিলে অসুস্থ প্রতিযোগিতা শুরু হবে।

বর্তমানে সারা দেশে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা প্রায় ২৮ হাজার। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারী আছেন প্রায় পাঁচ লাখ। এর বাইরে স্বীকৃতি পাওয়া নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আছে পাঁচ হাজার ২৪২টি। এগুলোতে শিক্ষক-কর্মচারী আছেন ৭৫ হাজার থেকে ৮০ হাজার। স্বীকৃতির বাইরে আরো প্রায় দুই হাজার নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে।



মন্তব্য