kalerkantho


নিখোঁজ স্থপতির ভিডিও ফুটেজ পাওয়া গেছে

ওমর ফারুক   

১২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



চার দিন আগে রাজধানীর দারুসসালাম এলাকা থেকে নিখোঁজ হওয়া স্থপতি বি এম মাহফুজ নবীন একটি ব্যাংকের বুথে ঢুকছেন, টাকা তুলে গুনছেন এবং বেরিয়ে রাস্তায় হাঁটছেন—এমন দৃশ্যের ভিডিও ফুটেজ পেয়েছে পুলিশ। টাকা তোলার ঘণ্টাখানেক পর থেকেই তাঁর মোবাইল ফোন বন্ধ হয়ে যায়। তাঁর নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ঘটনাটি রহস্যজনক মনে করছে পুলিশ।

তবে নবীনের স্ত্রী জান্নাতুল এশার সন্দেহ, টাকা নেওয়ার জন্যই হয়তো অপহরণকারী বা ছিনতাইকারীরা তাঁকে তুলে নিয়ে গেছে।

গত রবিবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে কলবাগানে অফিসে যাওয়ার কথা বলে ভাসানটেকের বাসা থেকে বের হন নবীন। দুপুর ২টার পর তাঁকে ফোন করে ফোনটি বন্ধ পান তাঁর স্ত্রী এশা। পরে অফিসে ফোন করে জানতে পারেন তিনি অফিসে যাননি। ফোন বন্ধ পাওয়ার আগে নবীনের মোবাইল ফোন থেকে এশার ফোনে একটি খুদে বার্তা (এসএমএস) আসে। এতে জানানো হয়, মোবাইলের চার্জ শেষ হয়ে গেছে অফিসে গিয়ে দুপুরে ফোন করবেন নবীন। কিন্তু এরপর আর কোনো যোগাযোগ হয়নি। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তাঁর খোঁজ মেলেনি। এর আগে গত সোমবার নবীনের স্ত্রী ভাসানটেক থানায় একটি জিডি করেছেন।

ভাসানটেক থানার ওসি মুন্সি সাব্বির আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নবীনকে খুঁজে বের করতে পুলিশ চেষ্টা করে যাচ্ছে। তিনি বাসা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর একটি বুথ থেকে টাকা তুলেছেন—এমন ভিডিও ফুটেজ পাওয়া গেছে। আমরা খতিয়ে দেখছি ঘটনাটি আসলে কী।’

পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান, তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে বাসা থেকে মাইল দুয়েক দূরে কচুক্ষেত এলাকায় নবীন ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের একটি বুথে ঢোকেন দুপুর ১২টা ৪৬ মিনিটে। সেখান থেকে ২০ হাজার টাকা তুলে তিনি সেগুলো গোনেন। এ সময় তাঁকে স্বাভাবিকই দেখা গেছে। ওই এলাকায় থাকা আরো কয়েকটি ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা থেকে ভিডিও ফুটেজ পাওয়া গেছে। সেগুলোতে দেখা গেছে নবীন হেঁটে বুথে একাই ঢুকেছেন। বেরিয়েও গেছেন একাই। ১টা ৩৭ মিনিট পর্যন্ত তাঁর মোবাইল ফোনটি চালু ছিল। এরপর দারুসসালাম এলাকা থেকে তাঁর ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

জানতে চাইলে নবীনের স্ত্রী এশা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সে খুব ভালো মানুষ। সে সব সময় আমার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রাখে। যদি অফিস থেকে বাসায় আসতে দেরি হয় তাহলে সে আগেই ফোনে আমাকে জানায়, যাতে টেনশন না করি।’

 

 



মন্তব্য