kalerkantho


কানেকটিকাটে 'বাক'-এর কর্মকাণ্ড বন্ধে নিষেধাজ্ঞা মামলা আদালতে খারিজ

সাবেদ সাথী, নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি    

২ আগস্ট, ২০১৭ ০২:৪৬



কানেকটিকাটে 'বাক'-এর কর্মকাণ্ড বন্ধে নিষেধাজ্ঞা মামলা আদালতে খারিজ

ছবি : ইন্টারনেট থেকে

যুক্তরাষ্ট্রের কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যের বাংলাদেশি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব কানেকটিকাট (বাক) কার্যক্রম বন্ধে ১৭ জন বাংলাদেশির বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা খারিজ করেছেন কানেকটিকাটের একটি আদালত। সাম্প্রতি বাক এর দু'গ্রুপের মধ্যে নির্বাচন পরবর্তী ক্ষমতা হস্তান্তর ও নির্বাচিত নতুন একটি কমিটির কর্মকাণ্ড বন্ধে অয়াস্থী নিষেধাজ্ঞা জারির বিষয়ে এ মামলাটি দায়ের করা হয়েছিল।

কানেকটিকাটের নিউ বৃটেন সুপরিয়র আদালত (জুডিশিয়াল ডিস্ট্রিক্ট) এর মাননীয় বিচারক রবার্ট ই ইয়ং গত ২১ জুলাই বাক এর নির্বাচিত নতুন কমিটি (কামাল-হুমায়ুন পরিষদ) এর কর্মকাণ্ড বন্ধে (মোশন ফর টেম্পোরারি ইঞ্জাংঙ্কশন) অয়াস্থী নিষেধাজ্ঞা জারির বিষয় সংক্রান্ত মামলাটি খারিজ করে দেন।  

এ কমিটির নির্বাচিত সভাপতি মসিউর রহমান কামাল ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন জায়গীরদারসহ ১৭ জনকে অভিযুক্ত করে এ মামলাটি দায়ের করেছিলেন বাক-এর অপর গ্রুপের সভাপতি মইনুল হক চৌধুরী হেলাল। তার আবেদনের প্রেক্ষিতে মাননীয় বিচারক 'এক্স পার্টে রিলিফ ইজ ডিনাইড' সংক্রান্ত একটি আদেশ দেন। এ আদেশের ফলে বাক এর বর্তমান কার্যনির্বাহী বোর্ডের কার্যক্রমে কোন রকম হস্তক্ষেপ বা বাধা রইলো না বলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেছেন বাক এর কর্মকর্তাবৃন্দ।

উল্লেখ্য, অসুস্থ মাকে দেখতে বাংলাদেশে অবস্থানরত বাক এর সভাপতি মসিউর রহমান কামালের অনুপস্থিতিতে সহ-সভাপতি (প্রথম) নুরুল আলম নুরু সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি উল্লেখ করেছেন মইনুল হক চৌধুরী হেলাল ও তার গংদের বাক -এর কর্মকর্তা বলে দাবি করা একেবারেই ভিত্তিহীন। হেলাল নিজেকে বাক এর সভাপতি দাবি করাও অযৌক্তিক বলে উল্লেখ করেন তিনি।   

তিনি বলেন, এ অনভিপ্রেত মামলার ১৭ জন বিবাদী বাকের সংবিধান এবং কানেকটিকাটের আইন অনুযায়ী ১০১৭-২০১৯ সালের বাকের কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচিত বৈধ কর্মকর্তা। হেলাল গংদের মিথ্যা দাবি এবং অপপ্রচারের প্রেক্ষিতে আনিত মামলার বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়ায় ১৭ জন তাদের বৈধতা প্রমাণে বদ্ধপরিকর।

 

কানেকটিকাটের নিউ বৃটেন সুপরিয়র আদালত (জুডিশিয়াল ডিস্ট্রিক্ট) এর মাননীয় বিচারক রবার্ট ই ইয়ংকে তারা ধন্যবাদ জানিয়েছেন। আগামী ২ আগষ্ট এ মামলা সংক্রান্ত আরেকটি শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।  


মন্তব্য