kalerkantho


শেষের ৭ পাউন্ড ওজন ঝরাতে...

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০৮:৪৩



শেষের ৭ পাউন্ড ওজন ঝরাতে...

ছবি অনলাইন

যারা করে তারাই বোঝে যে পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন কাজের একটি নিঃসন্দেহে ওজন কমানো। নানাবিধ ব্যায়াম আর খাদ্যতালিকা পাকাপোক্তভাবে মেনে চললেও অনেকের অগ্রগতি তেমন চোখে পড়ে না।

অনেকেই বেশ সহজে ওজন কমাতে পারে। তবে অধিকাংশের মতে, ওজন কমানোর নিয়মগুলো মনোযোগের সঙ্গে পালন করলে ইচ্ছা পূরণ হয়। কিন্তু লক্ষ্যমাত্রার শেষ সাত পাউন্ড কমানো সবচেয়ে কঠিন হয়ে পড়ে। এখানে আজ আলোচনা করা হবে ওই সাত পাউন্ড কমানোর কৌশল নিয়ে—
 

কফিতে পরিবর্তন

ওজন কমানোর দৌড়ে এক কাপ সাদামাটা ব্ল্যাক কফি আপনাকে অনেক এগিয়ে রাখবে। তাই অন্যান্য কফি এড়িয়ে চলুন। কারণ ব্ল্যাক কফিতে মিলবে শূন্য ক্যালরি। অধিকাংশ পুষ্টিবিদ ওজন কমানোর জন্য ব্ল্যাক কফিতে জোর দেন। তাই টার্গেট পূরণে আপনাকে অন্যান্য কফি একেবারেই ছেড়ে দিতে হবে।

অগ্রগতিতে নজর

হয়তো প্রথম থেকেই আপনি সচেতন।

কিন্তু শেষের সাত পাউন্ড ঝরাতে আরো সাবধান হয়ে যান। অনেকেই প্রতি সপ্তাহে নিজের খাদ্যতালিকা একবার করে রেকর্ড করেন। কিন্তু এবার প্রতিদিন কাজটি করতে থাকুন। বাড়তি ক্যালরি আসে, এমন কোনো খাবার খাওয়া যাবে না। কোনো প্রশিক্ষকের অধীনে ওজন কমালে তাঁকে প্রতিদিনই তা রিপোর্ট করুন।

চিয়া বীজে ভরসা

ভক্ষণযোগ্য ক্ষুদ্র বীজ এগুলো। অনেকটা তিসির মতো। কালো রঙের হয়ে থাকে। এই খাবারটি ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে দক্ষ। উচ্চমাত্রায় ফাইবার থাকে। ওজন কমানোর স্বপ্ন বাস্তবায়িত করতে অতুলনীয়। বিপাকক্রিয়ায় সুষ্ঠুতা আনে। চিয়া বীজের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট খুবই শক্তিশালী। এটি দেহের ৭০ শতাংশ ক্ষতিকর ও বিষাক্ত উপাদান ভাগাতে পারে। পুষ্টিবিদদের মতে, ওজন হারাতে চিয়া বীজকে প্রতিদিনের সকালের নাশতার অনুষঙ্গ বানাতে পারেন।

মাংস নয়

লাল মাংস বলতে যা বোঝেন, তার সবই এড়িয়ে চলতে হবে। মাংস খাওয়া সামাল দিতে পারলেই দেখবেন ওজন অনেক কমে আসছে। উচ্চামাত্রার ফ্যাট পেটে না গেলে ওজন কমানো কঠিন কাজ নয় বলেই মত দিয়েছে ‘ফিজিশিয়ানস কমিটি ফর রেসপনসিবল মেডিসিন্স’।

অ্যাপিটাইজার সালাদ

কেবল এটা-সেটা খাওয়া কমালেই ওজন কমে না। অন্য কিছু খাওয়া বাড়াতেও হবে। যেমন—অ্যাপিটাইজার সালাদ। গবেষণায় বলা হয়, খাবার খাওয়া শুরুর আগে এই সালাদ খেলে অনেক উপকার। এতে ক্ষুধা কিছুটা কমে আসবে।

একটু হেঁটে আসুন

অফিসের টেবিলে একটানা বসে কাজ করবেন না। এ কথা হাজারবার শুনেছেন। অন্তত এক ঘণ্টা পর পর পাঁচ থেকে ১০ মিনিটের জন্য হেঁটে আসুন। এতে বেশ কিছু ক্যালরি পুড়বে। এটা কিন্তু ঘাম ঝরানো ব্যায়াম নয়। কিন্তু দারুণ কাজের।

প্রতিদিন একটি আপেল

অনেক গবেষণায়ই ওজন কমাতে আপেলের জাদুকরি ভূমিকার কথা তুলে ধরা হয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিদিন একটি করে আপেল খেলে ওজন কমতে থাকবে। মূলত হজমপ্রক্রিয়ায় অংশ নেওয়া উপকারী ব্যাকটেরিয়াকে স্বাস্থ্যকর পরিবেশে রাখে আপেল। একটি আপেলে পাঁচ গ্রাম ফাইবার আছে। কাজেই পেটও ভরবে।  

--চিট শিট অবলম্বনে সাকিব সিকান্দার


মন্তব্য