kalerkantho


কলার খোসা ফেলার আগে অবশ্যই এই লেখাটা পড়ুন!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ নভেম্বর, ২০১৭ ১৭:৩৩



কলার খোসা ফেলার আগে অবশ্যই এই লেখাটা পড়ুন!

শুনতে অদ্ভুত লাগলেও এটা সত্যি যে কলার খোসার মধ্যে লুকিয়ে আছে বহু গুণ। এই ফল এখানে সহজেই পাওয়া যায়।

তাই কলা খাওয়ার পর খোসা ডাস্টবিনে ফেলার আগে অবশ্যই এই লেখাটা পড়ে নিন।

কলার খোসায় উচ্চ পরিমাণে নিউট্রিয়েন্টস আর কার্বোহাইডেট আছে। এছাড়াও এতে ভিটামিন বি৬ আর বি১২ পাওয়া যায়। একই সঙ্গে এতে আছে ম্যাগনেসিয়াম‚ পটাসিয়াম। আসুন, দেখে নিন কলার খোসার কিছু উপকারিতা।

দাঁত সাদা করে : এক সপ্তাহ নিয়মিত এক মিনিট ধরে কলার খোসা দাঁতে ঘষে নিন। এক সপ্তাহে বাদে দেখবেন দাঁত অনেক বেশি সাদা দেখাচ্ছে।

আঁচিল সারাতে কাজ দেয় : পুরনো আঁচিল সারিয়ে তোলে‚ আবার নতুন আঁচিল গজাতে দেয় না। এটা করতে কলার খোসা আঁচিলের ওপর ঘষে নিন।

বা খোসা সারারাত আঁচিলের ওপর লাগিয়ে রাখুন।

শরীরের উপকার হবে : আগেই বলেছি কলার খোসায় অসংখ্য নিউট্রিয়েন্টস আর ভিটামিন আছে যা শরীরের জন্য উপকারী। তাই কলার খোসা ফেলে না দিয়ে রান্না করে খেয়ে নিন। এছাড়াও মুরগির মাংস নরম করতে সাহায্য করে।

ব্রণ সারিয়ে দেয় : এর জন্য মাত্র পাঁচ মিনিট কলার খোসা দিয়ে ব্রণের ওপর হাল্কা করে ম্যাসাজ করতে হবে। অবশ্য শুধুমাত্র ব্রণ নয় শরীরের যেকোন পিম্পল সারিয়ে তোলে। এক সপ্তাহের মধ্যেই ফল দেখতে পাবেন। তবে যতক্ষণ না পুরোপুরি সেরে যাচ্ছে কলার খোসা দিয়ে ম্যাসাজ করতে হবে।

রিঙ্কল কমায় : কলার খোসা ত্বককে আর্দ্রতা যোগায়। কলার খোসা বেটে তাতে ডিমের কুসুম মিশিয়ে নিন। এই প্যাক মুখে লাগিয়ে রাখুন। ১০ মিনিট রেখে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে নিন। বাকি প্যাক ফ্রিজে রেখে দিন পরে ব্যবহার করার জন্য।

ব্যথার উপশম ঘটায় : যে অংশে ব্যথা হচ্ছে সেখানে কলার খোসা লাগিয়ে রাখুন। অন্তত ৩০ মিনিট রাখতে হবে। দেখবেন ব্যথা অনেক কমে গেছে। এছাড়াও কলার খোসা বেটে তাতে কয়েক ফোঁটা ভেজিটেবিল অয়েল মিশিয়েও লাগাতে পারেন।

সোরিয়াসিস সারিয়ে দেয় : সোরিয়াসিস এক ধরণের স্কিন ডিজিজ। এটা হলে ত্বকের ওপর সাদা বা লাল দাগ দেখা যায় এবং সেই অংশ খুব চুলকায়। নিয়মিত আক্রান্ত জায়গায় কলার খোসা লাগালে এটা অনেকটাই কমে যায়। উপরন্ত কলার খোসার আর্দ্রতা ত্বককে ময়শ্চারাইজ করে ফলে চুলকানি কমে।

পোকার দংশনের ব্যথা কমাতে : মশার কামড় হোক বা অন্য পোকার দংশন সঙ্গে সঙ্গে রিলিফ পাওয়ার জন্য আক্রান্ত জায়গার ওপর কলার খোসা ঘষে নিন। চুলকানি এবং ব্যথা দুই দূর হবে।

চামড়ার জুতো বা জ্যাকেট চমকাতে : অফিসে বেরোনোর আগে চামড়ার জুতোয় পালিশ করার সময় নেই? জুতোর ওপর কলার খোসা ঘষে নিন। নিমষে জুতো চকচকে হয়ে উঠবে। চামড়ার যে কোন জিনিস চকচক করে তুলেতে কলার খোসার জুড়ি নেই।

সান ট্যান কমায় : সূর্যের কড়া রশ্মিতে ত্বক পুড়ে গেলে আক্রান্ত অংশ কলার খোসা দিয়ে ঘষে নিন।

কিছু দরকারি টিপস
> তাজা কলার খোসা ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।
> কলার খোসা ছাড়িয়ে তক্ষুনি কলা খেয়ে নিন। কলা ছাড়িয়ে রেখে দেবেন না।
> কলা সব সময় ঠান্ডা‚ শুকনো জায়গায় রাখার চেষ্টা করুন। সূর্যের তাপে কখনোই কলা রাখবেন না।
> কলার খোসা রাস্তায় বা যেখানে সেখানে ফেলে দেবেন না।


মন্তব্য