kalerkantho


দোকান উচ্ছেদে বাধা

মঠবাড়িয়ায় ছাত্রলীগ নেতাকে কোপালেন যুবলীগ নেতা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর   

১৮ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার মিরুখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি লাভলু তালুকদারকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষ। গত শুক্রবার রাতে মিরুখালী ইউনিয়নের কাটাখালী বাজারে এ হামলা হয়। রাতেই তাঁকে সংকটজনক অবস্থায় বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে উপজেলার ভগীরথপুর বাজারে এক ব্যবসায়ীর দোকান ভেঙে দিয়ে মালপত্র লুট করে সেখানে দোকান নির্মাণের চেষ্টার সময় ছাত্রলীগ নেতা লাভলু বাধা দেন। এর জেরে উপজেলা যুবলীগের সহসভাপতি শামীম হাওলাদার ও তাঁর দলবল ওই হামলা চালায় বলে সূত্র জানায়।

দোকান ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় গতকাল শনিবার সকালে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী মো. ফজলুল হক অভিযুক্ত শামীম হাওলাদার, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ছত্তার হাওলাদার, মুরাদসহ এজাহার নামীয় ছয়জন ও অজ্ঞাতপরিচয় চারজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। এদিকে হামলার ঘটনায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। সেখানে সব ধরনের সহিংসতা এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ফজলুল হক ভগীরথপুর বাজারে কেনা জমিতে দোকানঘর তুলে ২০ বছর ধরে ভোগদখল করে আসছেন। সম্প্রতি পাশের ভাণ্ডারিয়ার সিংখালী গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে শামীম হাওলাদার জমিটি দখলের পাঁয়তারা করেন; দোকানটির ভাড়াটিয়া জাকিরকে দোকানঘর থেকে নেমে যেতে বারবার চাপ দিচ্ছিলেন। শুক্রবার বিকেলে শামীম ও তাঁর দলবল দোকানঘরটি ভেঙে ফেলে। জাকিরের ফ্রিজ, ফ্রিজে রাখা মাছ-মাংসসহ প্রায় এক লাখ টাকার মালপত্র লুটে নেয়। শামীম ও তাঁর দলবল উচ্ছেদ হওয়া জমিতে ইট-বালু দিয়ে নতুন ঘর নির্মাণের চেষ্টা করে। এর প্রতিবাদ জানান লাভলু তালুকদার। এর জেরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে শামীম ও তাঁর লোকজন লাভলুকে কাটাখালী বাজারে আটকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথাসহ বিভিন্ন স্থানে কোপায় ও হাতুড়ি দিয়ে পেটায়।

শামীম হাওলাদার দোকানঘরের ওই জমি তাঁর দাদার ওয়ারিশ সূত্রে মালিক বলে দাবি করেন। ছাত্রলীগ নেতার ওপর হামলার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছেন।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি গোলাম ছরোয়ার জানান, দোকানঘর গুঁড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় থানায় মামলা নেওয়া হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ছাত্রলীগ নেতা আহতের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ঘটনাস্থলে সার্বক্ষণিক পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।



মন্তব্য