kalerkantho


পানিতে ডুবে ৩ ভাই-বোনসহ সাত শিশুর মৃত্যু

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার গুণধর ইউনিয়নের উত্তর আশতকা গ্রামে পানিতে ডুবে তিন ভাই-বোন মারা গেছে। একই জেলার বাজিতপুরে মারা গেছে আরো দুই শিশু। এ ছাড়া গাইবান্ধার সাঘাটা ও কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে আরো দুই শিশু ডুবে মারা যায়। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

ঈদের পর বৃহস্পতিবার মায়ের সঙ্গে খালার বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিল তিন ভাই-বোন। দুই দিন খালাতো ভাই-বোনের সঙ্গে আনন্দেই সময় কেটেছে তাদের। কিন্তু গতকাল রবিবার লাশ হয়ে বাড়ি ফিরল তারা। শনিবার বিকেলে সবার অলক্ষ্যে খালার বাড়ির সামনের ডোবায় পড়ে তারা লাশ হয়। এই মর্মান্তিক ঘটনায় পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার গুণধর ইউনিয়নের উত্তর আশতকা গ্রামে শিশুদের খালার বাড়ির সামনের ডোবা থেকে গতকাল সকালে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে নৌকাযোগে উপজেলার দেহুন্দা ইউনিয়নের ভাটিয়া গাঙপাড়া গ্রামে পাঠানো হয়। তারা গ্রামের হেলাল উদ্দিন ও জ্যোত্স্না আক্তার দম্পতির সন্তান। নিহতরা হলো জোনাকী আক্তার (৯), চাঁদনী আক্তার (৬) ও শাফায়েত উল্লাহ (৫)।

স্বজনরা জানায়, শনিবার বিকেলে তিন ভাই-বোন খালা আসমা আক্তারের বাড়ির সামনে খেলা করছিল। এ সময় বাড়ির সবাই ঘরের কাজে ব্যস্ত ছিল। সবার অলক্ষ্যে বাড়ির সামনের ডোবায় তিন শিশু পড়ে গিয়ে নিখোঁজ হয়। পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেও তাদের না পেয়ে গুণধর ও আশপাশের এলাকায় মাইকিং করে। গতকাল রবিবার সকালে তিন শিশুর লাশ ডোবায় ভেসে উঠলে স্থানীয় লোকজনের চোখে পড়ে। ডোবা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। খালা আসমা আক্তার বিলাপ করতে করতে বলেন, ‘এরা বাড়ির সামনে খিলছিল। কুন সময় যে ফানিত ফইরা যায় কেউ দেহে নাই।’

একই জেলার বাজিতপুরের সরারচর ইউনিয়নের বাল্লা গ্রামে পুকুরে ডুবে শনিবার দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শিশু দুটি হলো প্রিয়া মণি (৮) ও রিফাত (৫)। প্রিয়া স্থানীয় দিনমজুর নূর ইসলামের মেয়ে এবং রিফাত রবির বাজারের চা দোকানি আসাদের ছেলে।

এ ঘটনায় বাজিতপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

এদিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে রবিবার দুপুরে পুকুরে ডুবে সোহেব (৩) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে উপজেলা সদরের সোনাকাটিয়া গ্রামের কাভার্ড ভ্যানচালক আলাউদ্দিনের ছেলে।

সোনাকাটিয়া গ্রামের বাসিন্দা ও চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার কাউন্সিলর মোকলেছ মিয়া জানান, রবিবার দুপুরে বাড়ির লোকজন যখন রান্না-খাওয়া নিয়ে ব্যস্ত, তখন শিশু সোহেব খেলার ফাঁকে বাড়ির উঠানের পাশের পুকুরে ডুবে যায়।

গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার বাদিনারপাড়া গ্রামে গতকাল রবিবার পুকুরে ডুবে মাহিম (৭) নামের এক শিশু মারা গেছে। এ সময় সাদিক (৬) নামের আরেক শিশু পানিতে ডুবে অসুস্থ হয়। মৃত মাহিম ওই গ্রামের শাহ আলমের এবং অসুস্থ সাদিক একই গ্রামের গোলাম মওলার ছেলে।

 



মন্তব্য