kalerkantho

আয় খুকু আয়

কিংশুক পার্থ    

১৭ জুন, ২০১৮ ১৪:৪১



আয় খুকু আয়

পৃথিবীর সুন্দরতম শব্দগুলোর মধ্যে অন্যতম সুন্দর শব্দ 'বাবা'। শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর যে শব্দগুলো সবার আগে তার মুখ থেকে বের হয়ে আসে তা হলো বাবা। বাবা হলেন অদ্বিতীয় আলো, সন্তানের কাছে চিরন্তন আস্থার প্রতীক। যার আলোয় আলোকিত হয়েই আমাদের সারা জীবনের পথচলা।

সন্তানদের সব দায়-দাযিত্ব নিঃস্বার্থভাবে কাঁধে নিয়ে হাসিমুখে সৃষ্টির শুরু থেকে বিন্দু বিন্দু করে নিজেকে বিলিয়ে দেন বাবা। কামনা করেন আমাদের সুখ-স্বাচ্ছন্দ্য। বাবা আর মা ছাড়া আর কে দেবেন সন্তানের জন্য এমন বিসর্জন? বাবা শব্দটির সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে নির্ভরতা। রয়েছে বিশালতা। বাবা শব্দটি অনেক কঠিন কাজকে করে দেয় সহজ; পাহাড় সমান বিষন্নতাকে শুষে নেয় নিমেষেই।

বাবা তো সেই, যার হাতে হাত রেখে হাঁটি হাঁটি পায়ে আমরা এগিয়ে যাই নতুন পৃথিবীর সন্ধানে। যার কাঁধে চড়ে আমরা প্রথম জানতে পারি পৃথিবীর রূপ কী। বাবা হলেন বটবৃক্ষ, নিদাঘ সূর্যের তলে সন্তানের অমল শীতল ছায়া তিনি। সদ্য জন্ম নেওয়া সন্তানকে বুকে নিয়ে বাবার যে সুখ তা এই পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দরতম জিনিস। সন্তান কোলে বাবার ভালোবাসায় বেহেশতি সুখ। সন্তানের মুখে হাসি দেখলেই একজন বাবা হন পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সুখী মানুষ।

সন্তানের কাছে বাবা পথপ্রদর্শক ও বন্ধু। সন্তানের দুঃসময়ে বাবা ডেকে নিয়ে বুকে চেপে রাখেন, চেষ্টা করেন সব কষ্ট ঘুচিয়ে দেওয়ার। বিপদে বুকে আগলে রাখেন নির্ভীক নাবিকের মতো। বাবা শুধু একজন মানুষ নন কিংবা নন কোনো সম্পর্কের নাম। বাবা মানে বিশালত্ব, সমগ্র পৃথিবী। হাঁটিঁহাঁটিঁ পা পা করে চলতে শিখি বাবার হাত ধরেই। বাবার কাঁধটুকু তো সন্তানের জন্যই। 

লেখক চিত্রগ্রাহক 
(পাঠকের কথা বিভাগে প্রকাশিত লেখা ও মন্তব্যের দায় একান্তই সংশ্লিষ্ট লেখক বা মন্তব্যকারীর, কালের কণ্ঠ কর্তৃপক্ষ এজন্য কোনোভাবেই দায়ী নন।) 



মন্তব্য