kalerkantho


জাতিসংঘে যাননি সু চি!

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৬:০৯



জাতিসংঘে যাননি সু চি!

রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের ইস্যুতে বিশ্বজোড়া সমালোচনার মুখে, এ বার জাতিসংঘের সাধারণ সভার বার্ষিক সম্মেলন এড়িয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন মায়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি৷ ইয়াঙ্গুনের অবশ্য যুক্তি, সমালোচনার ভয়ে নয়, দেশবাসীর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই নিউ ইয়র্কে যাচ্ছেন না সু চি৷

সে দেশের রাষ্ট্রপতির দপ্তরের তরফে বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, ‘মূলত দু’টি কারণে সু চি যাচ্ছেন না৷ প্রথমত, রাখাইনের বর্তমান পরিস্থিতি এবং সীমান্ত এলাকায় জঙ্গি হামলার ফলে তৈরি হওয়া বিশৃঙ্খলা৷ জনগণের নিরাপত্তা এবং কল্যাণের জন্য বর্তমানে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি৷ দ্বিতীয়ত, নানা সূত্র থেকে জানা গিয়েছে জঙ্গিরা নতুন করে মায়ানমারের বিভিন্ন জায়গায় হামলা চালাতে পারে, এমন অবস্থায় নেত্রীর বিদেশে যাওয়া ঠিক হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে৷ ’

গত মঙ্গলবার থেকে নিউ ইয়র্কে শুরু হয়েছে এই বার্ষিক সম্মেলন, যাতে বিশ্বের সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ দেশের প্রধানরাই অংশ নেন৷ সাত দিন ধরে চলবে এই অনুষ্ঠান, যেখানে বক্তব্য পেশ করবেন মার্কিন প্রেসিডেন্টও৷ গত বছর এই মঞ্চে দেখা গিয়েছিল সু চি-কেও৷

যদিও , নোবেল শান্তিজয়ীর সেই ভাষণ থেকেই জন্ম নিয়েছিল নতুন বিতর্ক, যেখানে তিনি বলেছিলেন, ‘রোহিঙ্গাদের বিষয়টি তাঁর সরকার নিজের মতো করেই মোকাবিলা করবে, আন্তর্জাতিক মহলে কে কী বলল, তাতে কিছু আসে যায় না৷ ’

বিতর্ক অবশ্য নতুন মাত্রা পেয়েছে এ বছর, গত ২৫ আগস্ট থেকে৷ সীমান্তে সেনার ওপর হামলার পর রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে সু চি প্রশাসন৷ হিংসার আগুনে পুড়েছে গ্রামের পর গ্রাম৷ ঘর ছেড়ে বাংলাদেশে পালিয়ে গিয়েছেন কয়েক লক্ষ রোহিঙ্গা মুসলিম৷

প্রতি দিনই বাংলাদেশ সীমান্তে জড়ো হচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ, দেশ ছেড়ে, শেষ সম্বলটুকু সঙ্গে নিয়ে৷ ইতিমধ্যেই মায়ানমার সরকারের প্রতি মানবিক হওয়ার বার্তা দিয়েছে একাধিক দেশ, কড়া বার্তা এসেছে জাতিসংঘ থেকেও৷

বিশেষজ্ঞদের মতে, সম্ভবত সম্মেলনে গেলে একগুচ্ছ প্রশ্নের মুখে পড়তে হবে এটা আঁচ করেই তা এড়িয়ে গেলেন সু চি৷ তবে, দেশের বাইরে না গেলেই সমালোচনা এড়ানো যাবে, এমনটা ভাবার বোধহয় তেমন কোনও কারণ নেই৷


মন্তব্য