kalerkantho


'রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় কেউই বাংলাদেশের পাশে নেই'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৭ অক্টোবর, ২০১৭ ১৫:২৫



'রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় কেউই বাংলাদেশের পাশে নেই'

রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় চীন, ভারত, সোভিয়েত ইউনিয়ন কেউই এখন বাংলাদেশের পাশে নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি আরো বলেন, কূটনৈতিক ব্যর্থতায় রোহিঙ্গা সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে।

আজ শনিবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটি মিলনায়তনে এক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলে, দেশের কূটনৈতিক ব্যর্থতার কারণে রোহিঙ্গা সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করেছে। শক্তভাবে ভারত, চীন ও রাশিয়ার সঙ্গে আলোচনা করতে পারলে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকানো যেত।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গারা বেশিদিন থাকলে দেশে বহুমাত্রিক সমস্যা সৃষ্টি হবে। ভৌগোলিক সীমারেখায় সামাজিক অস্থিরতা তৈরি হবে। তারা আর্ন্তজাতিক সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদে ব্যবহার হবে। তাই এখনই বিশ্বব্যাপী জোর কূটনৈতিক তৎপরতা সৃষ্টির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরানোর ব্যবস্থা করতে হবে।

বিএনপির শীর্ষ এই নেতা আরো বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুর মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি আমেরিকাকে বোঝাতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে। কূটনৈতিক ব্যর্থতা এখান থেকেই শুরু হয়েছে।

জাতিসংঘে গিয়ে বিশ্বনেতাদের সঙ্গে বৈঠকে রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, আমেরিকার সাহায্য দরকার নেই। এটা প্রধানমন্ত্রী ভুল করেছিলেন। এ কারণেই বিশ্বনেতারা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন।

তিনি বলেন, মানবিক কারণেই আমরা রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিচ্ছি। তবে এ ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সহায়তা প্রয়োজন বলেও জানান তিনি।

এ ছাড়াও প্রধান বিচারপতির ছুটি প্রসঙ্গে ড. মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার রাষ্ট্রের তিনটি স্তম্ভ ভেঙে ফেলেছে। প্রধান বিচারপতি অসুস্থ নয়। তাকে অসুস্থ বানিয়ে জোর করে ছুটিতে যেতে বাধ্য করেছে সরকার।  

তিনি আরো বলেন, প্রধান বিচারপতি পূজায় গিয়েছিলেন, অস্ট্রেলিয়া অ্যাম্বাসিতে গিয়েছিলেন। তবে তিনি কিভাবে অসুস্থ? দেশের গণতন্ত্র, দেশের মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে সে লক্ষ্যে সহায়ক সরকারের মাধ্যমে একটি অবাধ সুষ্ঠ নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

'রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান কোন পথে ও বর্তমান প্রেক্ষাপট' শীর্ষক এ আলোচনার আয়োজন করে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি- জাগপা। এতে আরো বক্তব্য রাখেন জাগপার সিনিয়র সহসভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান, সহসভাপতি এম এ মান্নান, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, ওলামা দলের নেতা শাহ মো. মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ।


মন্তব্য