kalerkantho


আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিচার চান মানবাধিকার আইনজীবীরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ মে, ২০১৮ ১১:৫১



আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিচার চান মানবাধিকার আইনজীবীরা

ছবি অনলাইন

রোহিঙ্গা নির্যাতনের ঘটনায় আন্তর্জাতিক বিচারালয়ে (আইসিসি) মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বিচারের পথে অগ্রসর হচ্ছেন মানবাধিকার আইনজীবীরা। ৪০০ রোহিঙ্গার পক্ষে এক দল আইনজীবীর গতকাল বুধবার রাতে এসংক্রান্ত একটি আবেদন আইসিসিতে জমা দেওয়ার কথা। যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম স্কাইনিউজের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

আইসিসিতে রোহিঙ্গাদের প্রতিনিধিত্বকারী আইনজীবীদের অন্যতম মানবাধিকার আইনজীবী ওয়েইন জরদাস এই অপরাধ সংঘটনকারীদের বিচারের আওতায় আনা নিয়ে খুবই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। তিনি স্কাইনিউজকে বলেন, ‘আমরা বলে আসছি যে কোনো জবাবদিহি ছাড়া, অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনার ব্যাপারে গুরুত্বহীনতার মধ্যেই এই ধরনের অপরাধ ঘটছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘তারা যে একই অপরাধ অব্যাহত রাখতে পারে এ নিয়ে আমার সামান্যই সন্দেহ আছে। কারণ মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ জানে যে আইনি বিকল্প সংকুচিত হয়ে আসছে এবং অশুভ রাষ্ট্র অভিনেতারা তাদের (অপরাধীদের) জবাবদিহি থেকে সুরক্ষা দিয়ে রাখছে।’

কিন্তু মিয়ানমার সরকার যতই তার সেনাবাহিনীর অপরাধীদের ঢাল হয়ে দাঁড়াক, আইসিসির আইনজীবীরা বিকল্প পন্থায় তাদের বিচারের আওতায় আনার চেষ্টা করছেন। নিয়ম হলো, যদি কোনো রাষ্ট্র তার নাগরিকদের হত্যা, গণহত্যা বা নির্যাতনের বিচার করতে অক্ষম হয় কিংবা অপারগতা প্রকাশ করে তাহলেই শুধু এর বিচার করতে পারে আইসিসি। এ ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দেশটিকে আইসিসির সনদে স্বাক্ষরকারী দেশ হতে হয়। কিন্তু মিয়ানমার এক দিকে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের বিচারে যেমন অনীহা প্রকাশ করে আসছে, তেমনি সে আইসিসির সনদে স্বাক্ষরকারী দেশও নয়। এ জন্যই আইনজীবীদের বিকল্প চিন্তা।

আইনজীবীরা আদালতে এই যুক্তি দেখাতে চান যে এই ঘটনা আইসিসির তদন্ত করা উচিত এবং জোরপূর্বক রোহিঙ্গা লোকদের বাংলাদেশে বিতাড়ন, গণহত্যার উপায় অবলম্বন করা, যৌন সহিংসতা পরিচালনা এবং জাতিগত নিধনের ব্যাপারে মিয়ানমারের কর্তৃপক্ষকে অভিযুক্ত করতে পারে।


মন্তব্য